ঘরের মেঝেতে রক্ত দিয়ে ‘এ প্লাস আর’ লিখে গৃহবধূর আত্মহত্যা

২০ নভেম্বর ২০২০, ০২:৪৭ পিএম | আপডেট: ২৩ নভেম্বর ২০২০, ০৪:৪২ পিএম


ঘরের মেঝেতে রক্ত দিয়ে ‘এ প্লাস আর’ লিখে গৃহবধূর আত্মহত্যা
ছবি সংগৃহীত

যশোরের অভয়নগরে কুলসুম আক্তার (৩৫) নামে এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার নওয়াপাড়া প্রফেসরপাড়ার একটি ভাড়া বাসা থেকে ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গৃহবধূ কুলসুমের আত্মহত্যার কারণ এখনও জানা যায়নি। তবে আত্মহত্যার আগে তিনি ঘরের মেঝেতে নিজের শরীরের রক্ত দিয়ে ‘A+R’ লিখে গেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আত্মহত্যার ঘটনায় তার স্বামী ইমতিয়াজ আবাবিল মোহাম্মদ ইয়াসিনকে (৪৫) আসামি করে থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় স্বামী বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, ছয় বছর আগে ইয়াসিনের সঙ্গে কুসুমের বিয়ে হয়। দু'জনেরই আগে একবার করে বিয়ে হয়েছিল।

অভয়নগর থানার ওসি বলেন, কুসুমের সঙ্গে বিয়ের আগেই ইয়াসিনের দুটি ছেলে এবং কুসুমের একটি মেয়ে ছিল। বিয়ের পর ইয়াসিন কুসুম ও কুসুমের মেয়েকে নিয়ে অভয়নগরের প্রফেসরপাড়ার মতিয়ার রহমানের বাড়ি ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন।

স্থানীয়রা আরও জানান, বিয়ের কিছুদিন পরই কুসুম তার স্বামী পরকীয়া প্রেমিকা ফাতেমা আক্তার রুমা নামে একজন নারীর কথা জানতে পারেন। এরপর থেকেই সংসারে অশান্তি শুরু হয়। বিষয়টি নিয়ে দু'জনের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অভয়নগরের ভাড়া বাড়িতে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে কুসুম আত্মহত্যা করেন বলে এলাকাবাসীর ধারণা। মৃত্যুর আগে কুসুম রক্ত দিয়ে একটি কাগজে ইংরেজি হরফে এ+আর লিখে রেখে গেছেন। পুলিশ ও স্থানীয়দের ধারণা, বর্ণদুটি তার স্বামী ও স্বামী পরকীয়া প্রেমিকার নামের অদ্যাক্ষর।

অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) তাজুল ইসলাম জানান, শুক্রবার সকাল পর্যন্ত আসামিকে আটক করা যায়নি। অভিযুক্ত ইমতিয়াজ আবাবিল মোহাম্মদ ইয়াসিন ঢাকায় থাকেন।

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন।