‘সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি পাবে বিএনপি’

২৪ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৪৫ পিএম | আপডেট: ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:২১ পিএম


‘সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি পাবে বিএনপি’

শর্তসাপেক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপি সমাবেশের অনুমতি পাবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) মুঠোফোনে ঢাকাপ্রকাশ-কে এ তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, সমাবেশের বিষয়টি নিয়ে আজও আমি গণমাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছি। আজ বা কালকের মধ্যেই আনুষ্ঠানিকভাবে পুলিশ বিষয়টি জানিয়ে দেবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএনপি একটি রাজনৈতিক দল। মিছিল, মিটিং, সমাবেশ করার অধিকার তাদের আছে। সবকিছু বিবেচনা করে শর্তসাপেক্ষে তাদের সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। সেই হিসেবে বিএনপিকে সমাবেশ করার সুযোগ বা অনুমতি দিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির প্রচার বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি ঢাকাপ্রকাশ-কে বলেন, বিএনপি সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের জন্য কোনো অনুমতি চায়নি। নয়াপল্টনে সমাবেশের জন্য অনুমতি চেয়েছে। কাজেই নয়াপল্টনে সমাবেশ হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ঢাকাপ্রকাশ-কে বলেন, নয়াপল্টনে আমাদের দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ হবে এবং ১০ ডিসেম্বর বিএনপি এই সমাবেশ সফল করবে। সরকার দলীয় বিভিন্ন সংগঠনের সমাবেশের অনুমতি দিচ্ছে পুলিশ। তারা তাদের নির্দিষ্টস্থানে সমাবেশ করছে কিন্তু আমাদের ক্ষেত্রে শর্তসাপেক্ষে কেন?

এর আগে গত ১৫ নভেম্বর ঢাকায় বিভাগীয় গণসমাবেশের অনুমতি নিতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুকের কার্যালয়ে যান বিএনপি নেতারা।

বিএনপি নেতা-কর্মীরা চলে যাওয়ার পর দুপুর সোয়া ১২টার দিকে মিন্টো রোডের ডিএমপি মিডিয়া সেন্টার ডিএমপি উপ-পুলিশ কমিশনার মো. ফারুক হোসেন বলেন, গোয়েন্দা সংস্থার দেওয়া তথ্যের ঝুঁকি বিশ্লেষণ করে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। তবে কবে নাগাদ অনুমতি দেওয়া যাবে তা নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না বলে জানান তিনি।

ডিএমপি উপ-পুলিশ কমিশনার বলেন, বিএনপি ঢাকা বিভাগে যে গণসমাবেশ করবে সেটার অনুমতির জন্য দলটির নেতারা ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে দেখা করেন। তারা সমাবেশের অনুমতি চেয়ে একটি আবেদন করেছেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা লিখিত দরখাস্ত পেয়েছি, এখন সেটি বিবেচনা করে দেখব অনুমতি দেওয়া যায় কি না। আমাদের যে গোয়েন্দা সংস্থা রয়েছে তাদের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখব কোনো ধরনের ঝুঁকি রয়েছে কি না।

কেএম/এমএইচ/এসজি 


বিভাগ : রাজনীতি