সরকার ইসলামকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে: চরমোনাই পীর

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৩৪ পিএম | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:০৭ এএম


সরকার ইসলামকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে: চরমোনাই পীর

সরকার ইসলামী শিক্ষাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম।

তিনি বলেন, ‘ইসলামী ও নৈতিক শিক্ষা সিলেবাসে নামমাত্র রেখে পাবলিক পরীক্ষা থেকে বাদ দিয়ে ইসলামী শিক্ষা ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে।’

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর উপজেলা শাখা আয়োজিত নওহাটার মোড়ে পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চরমোনাই পীর এসব কথা বলেন।

সংগঠনের মহাদেবপুর উপজেলা সভাপতি মাওলানা আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথসভায় জেলা ও থানা নেতারা বক্তব্য রাখেন।

মুফতি ফয়জুল করীম বলেন, ‘সিলেবাস থেকে নবী-রাসূল, সাহাবায়ে কেরাম, ইসলামী মনীষীর জীবন চরিত কৌশলে বাদ দিয়ে হিন্দুদের দেব-দেবী, রামায়ণ ইত্যাদি কাহিনি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের জন্য ভিন্ন ভিন্ন শিক্ষা দেওয়া হোক, তাতে আমাদের কোন আপত্তি নেই। কিন্তু ইসলামী মনীষীদের জীবন কাহিনী কেন বাদ দেওয়া হয়েছে? ইসলামী শিক্ষা সংকোচনীতি কেন গ্রহন করা হয়েছে? এটা ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়।

তিনি বলেন, ‘নিত্যপ্রয়াজনীয় জিনিসপত্রের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি জনজীবনকে ক্ষতির মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে অ্যালকোহল আইন ২০২২ প্রণয়ন করে মদ ও নেশগ্রস্তকে সহজলভ্য করে দিয়ে যুবসমাজকে ধ্বংস করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। একটি পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্র ধ্বংস করতে মাদকসেবিরাই যথেষ্ট। মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে মাদককে নিষিদ্ধ করতে হবে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এই নেতা বলেন, ‘সামাজিক ন্যায় বিচার আজ সূদূর পরাহত। সুশাসনের অভাবে মানুষ আজ অসহায়। স্বাধীনতার ৫১ বছরেও ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে পারেনি সরকার। ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে ইসলামের অনুশাসনের বিকল্প নেই।’

তিনি বলেন, দুর্নীতি সমাজের রন্দ্রে রন্দ্রে ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত উন্নত কল্যাণ রাষ্ট্র গঠনের লক্ষ্যে ইসলামের সুশীতল ছায়াতলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।

এমএইচ/এমএমএ/


বিভাগ : রাজনীতি