কিউইদের ধবলধোলাই করে র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ভারত

২৪ জানুয়ারি ২০২৩, ০৯:৫৪ পিএম | আপডেট: ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৬:০৯ এএম


কিউইদের ধবলধোলাই করে র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ভারত

ছোট মাঠ, ব্যাটিংবান্ধব কন্ডিশন। ইনদোরের এমন উইকেটে জ্বলে উঠলেন রোহিত শর্মা, শুভমান গিল ও ডেভন কনওয়ে। তাদের চার-ছক্কার বৃষ্টিতে হলো রানবন্যা। তবে শেষ হাসিটা হাসল ভারত। ৯০ রানের জয়ে কেবল কিউইদের ধবলধোলাইয়ের লজ্জা দেয়নি স্বাগতিকরা, দখলে নিয়েছে ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ভারতকে রানপাহাড়ে তুলেন রোহিত এবং শুভমান। দুই ওপেনারের সেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ৩৮৫ রানের সংগ্রহ পায় স্বাগতিকরা। জবাবে নিউজিল্যান্ড লড়েছে ডেভন কনওয়ের ব্যাটে। কিন্তু তার সেঞ্চুরিও যথেষ্ট হয়নি দলের জয়ের জন্য। সফরকারীরা থামে ২৯৫ রানে।

ম্যাচের শুরুতে কিউই বোলারদের জীবন দুর্বিষহ করে তোলেন দুই ভারতীয় ওপেনার। রোহিত-শুভমানের ২৬.১ ওভারের জুটিতে দলের খাতায় যোগ হয় ২১২ রান। প্রতিপক্ষের অধিনায়ককে বোল্ড করে এই প্রতিরোধ ভাঙেন কিউই অফব্রেকার মাইকেল ব্রেসওয়েল। সাজঘরে ফেরার আগে ৮৫ বলে ৯ চার এবং ৬ ছক্কায় ১০১ করেন রোহিত। খানিকবাদে শুভমানকে শিকার বানান ব্লেয়ার টিকনার। ভারতীয় এই ওপেনারের ৭৮ বলে ১১২ রানের ইনিংসে ছিল ১৩ চার এবং ৫ ছক্কার মার। রোহিত ও শুভমান প্যাভিলিয়নে ফেরার পর নিয়মিত উইকেট হারায় ভারত। তাতে অবশ্য কমেনি রান তোলার গতি।

বিরাট কোহলি (৩৬), ইশান কিশান (১৭) ও সূর্যকুমার যাদব (১৪) লম্বা ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হলেও হাফসেঞ্চুরি হাঁকান হার্দিক পান্ডিয়া। এই অলরাউন্ডার ৩৮ বলে ৩টি করে চার-ছক্কায় করেন ৫৪ রান। ভারতীয় ব্যাটারদের জ্বলে উঠার দিনে ৩টি করে উইকেট পান টিকনার ও জ্যাকব ডাফি।

এরপর রান তাড়ায় নিউজিল্যান্ডকে দুঃস্বপ্নের শুরু উপহার দেন হার্দিক। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই ফিন অ্যালেনকে মাঠছাড়া করেন এই ভারতীয় অলরাউন্ডার। শুরুর ধাক্কা অবশ্য সামলে নিয়েছিলেন কনওয়ে। প্রথমে হেনরি নিকোলসকে সঙ্গে নিয়ে গড়ে তুলেন ১০৬ রানের জুটি। নিকোলসকে (৪২) আউট করে প্রতিপক্ষের দ্বিতীয় উইকেট জুটি ভাঙেন স্পিনার কুলদীপ যাদব।

এরপর ড্যারিল মিচেলকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন কনওয়ে। তাদের সাবলীল ব্যাটিংয়ে সঠিক পথেই ছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু শার্দুল ঠাকুর তছনছ করে দেন তাদের সাজানো ইনিংস। দ্বিতীয় স্পেলে বোলিংয়ে ফিরেই পরপর দুই বলে দুই উইকেট শিকার করেন ভারতীয় পেসার। ইনিংসের ২৬তম ওভারের প্রথম বলে শার্দুল আউট করেন ২৪ রান করা ড্যারিলকে। পরের বলে প্যাভিলিয়নে অধিনায়ক টম লাথামকে। নিজের পরের ওভারে গ্লেন ফিলিপসকে (৫) তৃতীয় শিকার বানান শার্দুল।

সেই ধাক্কা আর সামলে নিতে পারেননি কনওয়ে। বরং মাঠ ছাড়েন উমরান মালিকের কাছে হার মেনে। ব্যক্তিগত ১৩৮ রানে থামেন কিউই ওপেনার। তার ১০০ বলের ইনিংসে ছিল ১২ চার এবং ৮ ছক্কার মার। কনওয়ে ফেরার পরই মূলত লেখা হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের টানা তৃতীয় হার।

শেষদিকে ব্রেসওয়েল (২৬) ও স্যান্টনারের (৩৪) ব্যাটে কমেছে কেবল কিউইদের পরাজয়ের ব্যবধান। সফরকারীরা অলআউট হয় ৪১.২ ওভারে।

এসজি


বিভাগ : খেলা