মহাথিরের মন্তব্য সরিয়ে ফেলল টুইটার

৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৬ পিএম | আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০১:৪৫ এএম


মহাথিরের মন্তব্য সরিয়ে ফেলল টুইটার
ছবি সংগৃহীত

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্যের বিরুদ্ধে এরদোগানের তীব্র প্রতিক্রিয়ার পর এবার নতুন করে বিশ্ব মিডিয়ার আলোচনায় এসেছেন মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ।

তিনি বলেছেন, অতীতের গণহত্যার কারণে লাখ লাখ ফরাসিকে হত্যা করার অধিকার মুসলমানদের আছে, কিন্তু মুসলমানরা তা করেনি। যেহেতু আপনারা (পশ্চিমা বিশ্ব) একজন ক্ষুব্ধ ব্যক্তি কী করেছেন, সেটার জন্য সব মুসলমান ও মুসলমানদের ধর্মের ওপর দোষ চাপিয়ে যাচ্ছেন, তাই মুসলমানদেরও ফরাসিদের শাস্তি দেয়ার অধিকার আছে।

বৃহস্পতিবার মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে এ মন্তব্য করেন ৯৫ বছর বয়সী মাহাথির। তবে মুসলিম বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী এ নেতার মন্তব্যটি সরিয়ে ফেলেছে টুইটার।

সামাজিকমাধ্যমটি বলেছে, মাহাথিরের ওই মন্তব্য সন্ত্রাসীদের উসকে দিতে পারে। এ কারণে তা সরিয়ে ফেলা হয়েছে। টুইটার কর্তৃপক্ষ তাদের ‘বিদ্বেষবিরোধী’ নীতির কারণে ওই টুইটবার্তাটি মুছে দিয়েছে।

টুইটে মাহাথির মোহাম্মদ আরও বলেছেন, শার্লি এবদুতে মহানবী হযরত মোহাম্মদকে (সা.) বিদ্রূপ করে প্রকাশিত কার্টুন ক্লাসে দেখানোর কারণে এক ফরাসি শিক্ষককে হত্যার ঘটনা কোনোভাবেই সমর্থন করেন না।

ফ্রান্সের এক ক্লাসে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর ব্যাঙ্গচিত্র দেখানোয় চলতি মাসেই স্যামুয়েল প্যাটি নামে ওই শিক্ষককে গলা কেটে হত্যা করা হয়। তবে বাকস্বাধীনতার অজুহাতে ইসলামবিদ্বেষকে সরাসরি সমর্থন দিচ্ছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান ফরাসি প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে ম্যাক্রোঁর ‘মানসিক স্বাস্থ্যের পরীক্ষা করা দরকার’ বলে মন্তব্য করেন। যার প্রতিক্রিয়ায় শার্লি এবদুতে এরদোয়ানের ব্যাঙ্গচিত্রও আঁকা হয়।