সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | ২ বৈশাখ ১৪৩১
Dhaka Prokash

ড্যাফোডিলে অনুষ্ঠিত হল কমিউনিটি ডিজিটাল স্টোরি টেলিং ফেস্টিভ্যাল (সিডিএসটিএফ) সিজন -১

ছবি: সংগৃহীত

"রিয়েল স্টোরিজ বাই রিয়েল পিপলস" স্লোগানকে সামনে রেখে দুদিনব্যাপী জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মাধ্যমে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা, মিডিয়া এবং যোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হল সিডিএসটিএফ সিজন-১। প্রথম সিজনের থিম ছিল ইনভায়রনমেন্ট এন্ড সাসটেইনএবেলিটি।

গত ১৬ ফ্রেব্রুয়ারী ড্যাফোডিল স্মার্ট সিটিতে সিডিএসটিএফ এর প্রথম দিনের প্রথম আসরের পর্দা উঠে উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স হলে। প্রথম দিনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংবাদিকতা মিডিয়া এবং যোগাযোগ বিভাগের প্রধান আফতাব হোসেন, ফেস্টিভ্যাল উপদেষ্টা এবং সাংবাদিকতা মিডিয়া এবং যোগাযোগ বিভাগের এসোসিয়েট প্রফেসর ড. কাবিল খান স্যার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর জনাব শেখ মুহাম্মদ আল্লাইয়ার এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় ওটিটি প্লাটফর্ম চরকির হেড অব কন্টেন্ট জনাব অনিন্দ্য ব্যানার্জি।

প্রথমদিন নির্ধারিত চারটি ক্যাটাগরির মধ্যে থেকে ইন্ডিপেন্ডেন্ট ক্যাটেগরির ফিল্মগুলো বড় পর্দায় প্রদর্শিত হয়। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত চলচিত্র নির্মাতা সুইনবার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ম্যাক্স স্লেসার এর নির্মিত “Gawe ka Pade” প্রদর্শনের পাশাপাশি বিশেষ মাস্টারক্লাসও পরিচালনা করেন গুণী এই নির্মাতা।

ফেস্টিভ্যাল এর দ্বিতীয় দিনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. লিজা শারমিন এবং আজকের পত্রিকার সম্পাদক, সাংবাদিকতা, মিডিয়া ও যোগাযোগ বিভাগের উপদেষ্টা ড. গোলাম রহমান। এদিন বাকি তিনটি ক্যাটেগরি প্রদর্শনের পাশাপাশি বাংলাদেশ টাইমসের মোজো টিম লিডার জনাব সাব্বির আহমেদ এর পরিচালনায় "Digital Storytelling Technique” শিরোনামের একটি প্যারালাল কর্মশালাও অনুষ্ঠিত হয়। এদিন প্রথমবারের মত The Bangladesh Independence Deceleration on International নামে আরও একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়।

সবশেষে উল্লেখিত ক্যাটেগরির বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। জার্নালিজম ক্যাটেগরিতে বিজয়ীরা হলেন- রাবিতা খন্দকার এবং মিঠুন মজুমদার, ডিআইইউ বেস্ট স্টোরি টেলিং ক্যাটেগরিতে বিজয়ী মোহাম্মদ শেখ এবং স্বাধীন ক্যাটেগরিতে বিজয়ী আইয়ুবউদ্দিন শিহাব।বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণের মধ্যে দিয়ে এবারের আসরের সমাপ্তি ঘটে। আয়োজকরা মনে করেন, সুবিধাবঞ্চিত ও নিপীড়িত মানুষদের না বলা গল্প সমূহ সমাজের সামনে উঠিয়ে নিয়ে আসার মাধ্যমে এসব মানুষের ভাগ্যবদল করা সম্ভব। শীঘ্রই সিজন -২ শুরু করতে যাবে বলে জানান উক্ত ফেস্টিভ্যালের উপদেষ্টা ড. আব্দুল কাবিল খান।

‘একীভূত হচ্ছে পাঁচ ব্যাংক, বাকি সিদ্ধান্ত পরে’

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মেজবাউল হক। ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বিডিবিএল, বেসিক, পদ্মা ও ন্যাশনাল ব্যাংকের বাইরে নতুন কোনো ব্যাংককে আপাতত একীভূত করা হবে না। তবে পরবর্তী সময়ে অন্য কোনো ব্যাংক একীভূত করা হবে কি না, সে সিদ্ধান্ত এখনও নেয়া হয়নি।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) এ তথ্য জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মেজবাউল হক।

তিনি বলেন, আপাতত রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বিডিবিএল, বেসিক, পদ্মা ও ন্যাশনাল ব্যাংকের একভূতীকরণ নিয়ে কাজ করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর বাইরে নতুন কোনো ব্যাংককে আপাতত একীভূত করা হবে না।

তবে পরবর্তী সময়ে অন্য কোনো ব্যাংক একীভূত করা হবে কি না, সে রকম কোনো সিদ্ধান্ত এখনই নেয়া হচ্ছে না বলেও জানান মেজবাউল হক। এর আগে বেসরকারি খাতের শরিয়াভিত্তিক এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে নাজুক পদ্মা ব্যাংক একীভূত হওয়ার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই হয়।

এদিকে ব্যাংক একীভূতকরণ সংক্রান্ত নীতমালা জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিমালার আলোকে দুর্বল (খারাপ অবস্থা) থাকা ব্যাংকগুলো নিজ থেকে একীভূত না হলে বাধ্যতামূলকভাবে একীভূত করা হবে। এর আগে দুই ব্যাংকের মধ্যে সমঝোতা সই করতে হবে। এরপর আমানতকারী, পাওনাদার ও বিনিয়োগকারীর অর্থ ফেরতের পরিকল্পনা জমা দিতে হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক বহিঃনিরীক্ষক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ব্যাংকের সার্বিক আর্থিক চিত্র বের করবে। সবশেষ আদালতের কাছে একীভূতকরণের আবেদন করতে হবে।

এতে কোনো ব্যাংক মূলধন ও তারল্য ঘাটতি, খেলাপি ঋণ, সুশাসনের ঘাটতি এবং আমানতকারীদের জন্য ক্ষতিকর কার্যকলাপের কারণে পিসিএ ফ্রেমওয়ার্কের আওতাভুক্ত হলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক পুনরুদ্ধারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিধিনিষেধ মানতে হবে। পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ব্যর্থ হলে আমানতকারীর স্বার্থে ব্যাংক বাধ্যতামূলক একীভূতকরণ হবে। একীভূতকরণ প্রক্রিয়া সুশৃঙ্খল এবং সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার লক্ষ্যে ব্যাংকের অনুসরণের এ নীতিমালা জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

ঢাকায় পৌঁছেছেন টাইগারদের নতুন কোচ নাথান কিয়েলি

টাইগারদের নতুন কোচ নাথান কিয়েলি। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের স্ট্রেংথ অ্যান্ড কন্ডিশনিং কোচ নাথান কিয়েলি। টাইগারদের আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে শুরু হবে কিয়েলির অধ্যায়।

রোববার (১৪ এপ্রিল) রাতে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন কিয়েলি। গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিসিবির ক্রিকেট অপরারেশন্স ইনচার্জ শাহরিয়ার নাফিস।

দ্রুতই কাজ শুরু করবেন ক্রিকেটারদের সঙ্গে। কাজ শুরু আগে আজ (সোমবার) কেইলি এসেছিলেন মিরপুর শের-ই বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

দুই বছরের চুক্তিতে জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করবেন নতুন এই কোচ। কিয়েলি এর আগে পেশাদার ক্রিকেট ও রাগবিতে কাজ করেছেন। এছাড়া চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে ২০১৮ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত ক্রিকেট নিউ সাউথ ওয়েলসে ফিজিক্যাল পারফরম্যান্স কোচ হিসেবে কাজ করেছেন তিনি।

এ ছাড়া এনএসডব্লিউ ব্লুজ, এনএসডব্লিউ পাথওয়েস ও প্রমীলা বিগ ব্যাশের দল সিডনি সিক্সার্সের সাথে কাজ করেছেন কিয়েলি।

বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম: ওবায়দুল কাদের

বক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির কার্যালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এ দেশের অস্তিত্বের মূলে আঘাত করতে চায়। মুক্তিযুদ্ধে বিএনপির কোনো ভূমিকা ছিল না। বিএনপিই তো তখন ছিল না। তারা তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অনুভব করবে না।

বিএনপি সন্ত্রাসী সংগঠন মন্তব্য করে তিনি বলেন, বাঙালি জাতিসত্তা যে দিনটি ধারণ করে সেই দিনটিকেই তারা অস্বীকার করে। তারা তো বাংলার সংস্কৃতিকে অস্বীকার করে। মুক্তিযুদ্ধকে অস্বীকার করে।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি যদি বাংলা সংস্কৃতিকে বিশ্বাস করত, তাহলে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকেও বিশ্বাস করত। বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বাঙালির চেতনা বিশ্বাস করবে, তা আশা করা যায় না। তারা তো স্বাধীনতাবিরোধী দল। সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসী সংগঠন।

বিএনপির ২০ হাজার নেতাকর্মী কীভাবে ৬০ লাখ হলো এ বিষয়ে মির্জা ফখরুলকে চ্যালেঞ্জ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের আটক করা হয়েছিল ২০ হাজার, হয়ে গেল ৬০ লাখ। আমি তাকে (মির্জা ফখরুল) চ্যালেঞ্জ করছি সে যেন অবিলম্বে সেই তালিকা প্রকাশ করে। নয়তো মিথ্যাচারের জন্য তাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বিষয়ে ঈদের আগে যেমন অভিযান চলেছে তেমনি এখনও চলবে। যতদিন জনগণের সমস্যা থাকবে ততদিন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টানতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

সর্বশেষ সংবাদ

‘একীভূত হচ্ছে পাঁচ ব্যাংক, বাকি সিদ্ধান্ত পরে’
ঢাকায় পৌঁছেছেন টাইগারদের নতুন কোচ নাথান কিয়েলি
বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম: ওবায়দুল কাদের
গোবিন্দগঞ্জে অটোচালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার
চট্টগ্রামে ২টি বস্তিতে আগুন, পুড়ল ২০০ ঘর
পার্পল ক্যাপের লড়াইয়ে মুস্তাফিজের অবস্থান এখন কোথায়?
পাঁচ দিনের ছুটিতে পদ্মা সেতুতে ১৪ কোটি টাকা টোল আদায়
মধ্যপ্রাচ্য ধ্বংসাত্মক যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে: জাতিসংঘের মহাসচিব
গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে বাংলাদেশের ১৬০ কেজি ওজনের পাঙ্গাস
প্রবাসী আয়ের শীর্ষে ঢাকা, তারপর চট্টগ্রাম সিলেট কুমিল্লা
প্রথমবারের মতো কান চলচ্চিত্র উৎসবে সৌদি আরবের সিনেমা
ইরানে হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করল ইসরায়েল
৬ বিভাগে বইছে তাপপ্রবাহ, আরও বাড়বে গরমের দাপট
এত অল্প সময়ে জাহাজ ও নাবিকদের মুক্তির ঘটনা নজিরবিহীন: নৌপ্রতিমন্ত্রী
৬৭০ পদে পেট্রোবাংলায় বিশাল নিয়োগ, আবেদন অনলাইনে
মামার বিয়েতে এসে নদীতে নিখোঁজ শিশু, ২১ ঘণ্টা পর ভেসে উঠলো মরদেহ
বায়ার্ন-রাজত্বের অবসান, জার্মানির নতুন চ্যাম্পিয়ন লেভারকুসেন
রাস্তা পার হতে গিয়ে বাস চাপায় প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী
সিলেটে বিদ্যুৎকেন্দ্রে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট
'আদম' সিনেমার নির্মাতা আবু তাওহীদ হিরণ মারা গেছেন