শান্তিতে নয়, ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে সাহিত্যে নোবেল পেতে পারেন ট্রাম্প!

০৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫০ এএম | আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৫০ পিএম


শান্তিতে নয়, ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে সাহিত্যে নোবেল পেতে পারেন ট্রাম্প!
ছবি সংগৃহীত

শান্তিতে ২০২১ সালের নোবেল পুরস্কারের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম নিয়ে সৃষ্ট গুঞ্জনের মধ্যে ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য করেছেন অসলোর পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউটের পরিচালক হেনরিক উর্দাল। তিনি জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শান্তিতে নোবেল পাওয়ার একেবারেই কোনো সম্ভাবনা নেই। তবে ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে তিনি সাহিত্যে পেয়ে যেতে পারেন তার প্রত্যাশিত নোবেল পুরস্কার। কারণ ক্ষমতার চার বছরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যেকটি ঘটনায় টুইটের পর টুইট করে টুইটার বিবৃতিকে 'টুইট সাহিত্যে'র পর্যায়ে নিয়ে গেছেন তিনি। যদি ট্রাম্প আসলেই নোবেল পেয়ে যান তবে এই যোগ্যতাতেই পাবেন বলে আমি মনে করছি।

আগামী সোমবার নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি জানাবে, এবছর শান্তিতে নোবেল কে বা কারা পেতে যাচ্ছে। এ নিয়ে চারদিকে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। এদিকে, কসোভো এবং সার্বিয়াকে শান্তি চুক্তির আওতায় আনতে ভূমিকা রাখায় শান্তিতে ২০২১ সালের নোবেল পুরস্কারের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম মনোনীত করতে দ্বিতীয়বারের মতো প্রস্তাব করেছেন সুইডেনের আইনপ্রণেতা ম্যাগনাস জ্যাকবসন। এর আগে ৯ সেপ্টেম্বর দীর্ঘদিন ধরে বিবদমান ইসরায়েল এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতকে চুক্তির আওতায় আনতে মধ্যস্থতার জন্য ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেওয়ার প্রস্তাব করেন নরওয়ে পার্লামেন্টের সদস্য ক্রিশ্চিয়ান টাইব্রিং-জিজেডে। তবে এ ব্যাপারে এখনো আনুষ্ঠানিক কোনো মন্তব্য করেনি নরওয়ের নোবেল কমিটি।

কেউ বলছেন ট্রাম্প, কারও মুখে ইসরাইলের প্রধনমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর নাম। করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে ‘অসামান্য’ অবদানের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নামও ভাসছে নোবেল হাওয়ায়। সব মিলিয়ে ৩১৮ জন ব্যক্তি ও সংস্থার মনোনয়ন তালিকা ঘুরছে হাতে হাতে।

নোবেল ইন্সটিটিউটের মতে, এ বছর শান্তিতে মোট ৩১৮ প্রার্থীর নাম প্রস্তাব করা হয়েছে- যার মধ্যে রয়েছে ২১১ জন ব্যক্তি এবং ১০৭টি প্রতিষ্ঠান। মনোনীতদের এই বিশাল তালিকার মধ্যে কে সেই ভাগ্যবান- তা নিয়ে জোর গুঞ্জন চলছে। জমে উঠেছে জুয়ার আসরও।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে রয়েছে গ্রেটা থানবার্গ এবং মানবাধিকার ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতাবিষয়ক সংগঠনগুলো। গত বছরও সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় ছিলেন গ্রেটা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদের ঝুলিতে যায়।

শান্তিতে ২০২১ সালের নোবেল নিয়ে এমন অস্বস্তির মধ্যেই বুধবার ট্রাম্পকে নিয়ে হাস্যকর এমন মন্তব্য করলেন ইউরোপের খ্যাতনামা নোবেল ইতিহাস বিশেষজ্ঞ ও অসলোর পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউটের পরিচালক হেনরিক উর্দাল।