সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪ | ২০ ফাল্গুন ১৪৩০
Dhaka Prokash

মেরে আঙান মে তুমহারা কেয়া কাম হ্যায়: সাঈদ খোকন

কাজী ফিরোজ রশীদ ও মোহাম্মদ সাঈদ খোকন

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম জমা দিতে গিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ঢাকা-৬ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেছেন, ‘মেরে আঙান মে তুমহারা কেয়া কাম হ্যায়।’ বুধবার (২৯ নভেম্বর) বেলা ১১টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার ও রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদকে উদ্দেশ্য করে মোহাম্মদ সাঈদ খোকন একথা বলেন।

এর আগে বিভাগীয় কমিশনার মো. সাবিরুল ইসলামের কাছে মনোনয়ন ফরম জমা দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনিবাহী কমিটির সদস্য ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

এ সময় ঢাকা-৬ এর বর্তমান সংসদ সদস্য মহাজোটের কাজী ফিরোজ রশীদের প্রসঙ্গ তোলেন সাংবাদিকরা। আওয়ামী লীগ জোটে গেলে যদি এই ঢাকা-৬ আসন জাতীয় পার্টিকে ছাড়তে হয় তখন আপনার (মোহাম্মদ সাঈদ খোকন) করণীয় কি হবে? এই প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ সাঈদ খোকন হিন্দি গানের লাইনটি বলেন, ‘মেরে আঙান মে তুমহারা কেয়া কাম হ্যায়।’

আওয়ামী লীগ তার নেতাকর্মীদের জন্য যা নির্ধারণ করবে তা দলের নেতাকর্মীদের আইন, অনুসরণীয়-অনুকরণীয় জানিয়ে মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, এটা প্রতিপালনের মধ্য দিয়ে আমরা রাজনীতি করি। দলের কথাই শেষ কথা, দলের কথাই চূড়ান্ত। পার্টির ডিসিশন-ই ফাইনাল।

দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, ‘আমার নেত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা-৬ আসনে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন, আমি আশা করি, এই আসনটা আমরা তাকে উপহার দিতে পারবো। এ জন্য ঢাকাবাসীসহ দেশের মানুষের কাছে দোয়া চাই।’

তিনি বলেন, ‘প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা এ দেশের মানুষের কাছে ডিজিটাল বাংলাদেশের ওয়াদা করেছিলেন। বাস্তবতায়ও তিনি তার ওয়াদা অক্ষর অক্ষরে পালন করেছেন। তার কল্যাণে বাংলাদেশ ডিজিটালাইজড হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আগামী দিনে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য আমাদের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন। সে জন্য আমি মনে করি এবারের নির্বাচনটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সারা বাংলাদেশে নৌকা প্রতীক নিয়ে হাজির হয়েছে জানিয়ে মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন-অগ্রগতি, অগ্রযাত্রা যেভাবে বাংলার মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করেছেন এবং করে চলছেন সেই সমস্ত উন্নয়নের গল্গ, সেই সমস্ত উন্নয়নের কথা আমরা প্রতিটি পাড়ায়-মহল্লায়, প্রতিটি ঘরে ঘরে নৌকা প্রতীক নিয়ে পৌঁছে দেব এবং নৌকার পক্ষে ভোট চাইবো। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী, ‘আই আম ভেরি ম্যাচ কনফিডেন্ট’ আমার এলাকার মানুষ, ঢাকা-৬ নির্বাচনী এলাকার মানুষ, ঢাকা শহরের মানুষ, বাংলাদেশের মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করার জন্য প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে নেতৃত্ব-কর্তৃত্ব এবং প্রধানমন্ত্রীত্ত্ব তুলে দেবেন, ইনশাআল্লাহ।

ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড সেবা চালু করবে মোবাইল অপারেটররা

ফাইল ছবি

ফোর-জিসহ উচ্চ গতির ফাইভ-জি প্রযুক্তিতে ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড চালু করবে মোবাইল অপারেটররা। প্রথমে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং পরে আবাসিক গ্রাহকেরা পাবেন এই সেবা। আগামী সপ্তাহেই অপারেটরদের লাইসেন্স দিতে পারে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

তবে আইএসপি ব্যবসায়ীরা বলছেন, মোবাইল অপারেটররা ব্রডব্যান্ড চালু করলে তারের মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবাদানকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সম্প্রতি মোবাইল অপারেটরদের ফিক্সড ওয়্যারলেস অ্যাকসেস বা তারবিহীন ব্রডব্যান্ড সেবা চালুর অনুমতি দিতে যাচ্ছে বিটিআরসি। এটি চালু হলে তারের ঝামেলা ছাড়াই উচ্চ গতির ফাইভ-জি ব্রডব্যান্ড সেবা পাবেন গ্রাহকেরা।

জানা গেছে, সিম ভিত্তিক রাউটার দিয়ে মোবাইল অপারেটররা ওয়াই-ফাই সেবা দিতে পারবে। শিগগিরই অপারেটরদের হাতে নতুন লাইসেন্স তুলে দেবে বিটিআরসি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বিটিআরসির স্পেক্ট্রাম ম্যানেজমেন্ট বিভাগের কমিশনার শেখ রিয়াজ আহমেদ বলেন, আমরা দেশীয় প্রতিষ্ঠানের তৈরি সিম বেজড ওয়াই-ফাই রাউটার দেখেছি। প্রতিষ্ঠানটির সবগুলো বিষয় কমপ্লাই করেছে। আশা করি অনুমোদন পেতে তাদের কোনও সমস্যা হবে না। তিনি বলেন, সিম বেজড রাউটার এলে তারহীন ওয়াই-ফাই সেবা পাওয়া যাবে। ব্যবহারকারী বাসা, অফিসের যেখানে থাকবেন সেখানেই রাউটার রেখে কাজ করতে পারবেন। ভালো অভিজ্ঞতা পাবেন।

এক প্রশ্নের জবাবে শেখ রিয়াজ আহমেদ বলেন, ফিক্সড ব্রডব্যান্ড ওয়াই-ফাই (আইএসপি) ও ফিক্সড ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড (মোবাইল ইন্টারনেট) মধ্যে সাংঘর্ষিক কিছু হবে না। দুটো দুই ধরনের সেবা। দুই ধরনের প্রতিষ্ঠান এটা দেবে। মোবাইল ফোন অপারেটররা আগে এই সেবা দিতে পারতো না। ইউনিক লাইসেন্সে (এক লাইসেন্সের অধীনে সব লাইসেন্স) এই সুযোগ দেওয়া আছে। ফলে মোবাইল অপারেটররা এই সেবা দিতে পারবে।

দেশে টিপিলিংক-সহ আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডের সিম বেজড রাউটার রয়েছে। দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন সিম বেজড রাউটার তৈরির জন্য বিটিআরসির কাছে অনুমোদন চেয়েছে। অনুমোদন পেলে প্রতিষ্ঠানটি উৎপাদনে যাবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ালটন ডিজিটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক লিয়াকত আলী ভুঁইয়া জানান, আমরা উৎপাদনকারী হিসেবে সিম বেজড ওয়াই-ফাই রাউটার তৈরি করার জন্য বিটিআরসিতে আবেদন করেছিলাম। সেই পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিটিআরসির ফ্যাক্টরি ভিজিট ছিল। যেসব বিষয় বিটিআরসির শর্ত ছিল আমরা সেসব কমপ্লাই করেছি। আশা করছি সিম বেজড ওফাই-ফাই রাউটার উৎপাদনের অনুমোদন পাবো। এটাই হবে দেশীয় সিম বেজড ওয়াই-ফাই রাউটার।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৭ মার্চ বিটিআরসি মোবাইল অপারেটরগুলোর কাছে ইউনিক লাইসেন্স হস্তান্তর করবে। ১৫ বছরের জন্য দেওয়া হবে এই লাইসেন্স। এই একটি লাইসেন্স নিলে অপারেটরগুলোকে আলাদা কোনও লাইসেন্স (টু-জি, থ্রি-জি, ফোর-জির জন্য আলাদা লাইসেন্স) নিতে হবে না। একটি লাইসেন্স নিলে সেই লাইসেন্স সব কিছু কাভার করবে। এমন কী ফাইভ-জি বা তার পরে আরও যেসব প্রযুক্তি সেবা আসবে তার কোনও আলাদা কোনও লাইসেন্স নিতে হবে না অপারেটরগুলোকে। সেই ইউনিক লাইসেন্স বা ইউনিফায়েড লাইসেন্সের গাইডলাইনে মোবাইল অপারেটরগুলোর জন্য এফডাব্লিউএ (ফিক্সড ওয়্যারলেস একসেস) সেবাদানের কথা উল্লেখ রয়েছে। ফলে মোবাইল অপারেটরগুলোও এই সেবা দিতে পারবে।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোন অপারেটর রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম বলেন, আমরা নতুন লাইসেন্স হাতে পাই। লাইসেন্স পেলে আমরাও ধীরে ধীরে এই সেবা চালু (ফিক্সড ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড) করবো। এই সেবা এফডাব্লিউএ (ফিক্সড ওয়্যারলেস একসেস) সেবা হলো ফাইভ-জি অথবা ফোর-জি, এলটিই ওয়্যারলেস প্রযুক্তি।

নতুন এই সেবা আইএসপিগুলোর (ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার) ব্রডব্যান্ড সেবার সঙ্গে সাংঘর্ষিক কিনা জানতে চাইলে দেশের ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবির সভাপতি এমদাদুল হক জানান, এ জায়গায় আমাদের আপত্তি আছে। ইউনিক লাইসেন্স দেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের বারবার বলা হয়েছে, দেশীয় উদ্যোক্তাদের (আইএসপি ব্যবসায়ী) সুরক্ষা দেওয়া হবে। মোবাইল অপারেটররা যদি সিম বেজড রাউটারের মাধ্যমে ওয়াই-ফাই সেবা দেয় তাহলে দেশীয় উদ্যোক্তাদের কীভাবে সুরক্ষা দেওয়া হলো? তিনি জানান, শিগগিরই সংগঠনের পক্ষ থেকে তারা টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় ও বিটিআরসির সঙ্গে বসবেন। বিষয়টির সুরাহা না হলে দেশীয় উদ্যোক্তারা ঝুঁকিতে পড়বেন।

মুড়িতে মাত্রাতিরিক্ত ফিটকিরি, জরিমানা গুনলেন ব্যবসায়ী

মুড়িতে ফিটকিরি, ব্যবসায়ীকে জরিমানা। ছবি: সংগৃহীত

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে এসময় মুড়ির মোড়কে মেয়াদ-মূল্য উল্লেখ না করা, আয়োডিন বিহীন ইন্ডাসট্রিয়াল লবণ ও মাত্রাতিরিক্ত ফিটকিরি ব্যবহার করাসহ বিভিন্ন অনিয়মের কারণে সুশীল শংকর মদক নামে এক মুড়ি ব্যবসায়ীকে ২৫ হাজার জরিমানা করা হয়েছে।

জাতীয় ভোক্তা-অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদফতরের আওতায় ভেজালরোধে তদারকিমূলক অভিযানে এই চালানো হয়েছে।

সোমবার (৪ মার্চ) দুপুরে উপজেলার নারান্দিয়ায় এলাকায় এই অভিযান পরিচালনা করেন- জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের টাঙ্গাইল জেলা কার্যালয়ের সহাকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম। অভিযানে সহায়তা করেন- টাঙ্গাইল সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিনিধি জেলা স্যানিটারী পরিদর্শক মো. আনোয়ারুর ইসলাম প্রমুখ।

অভিযান শেষে শিকদার শাহীনুর আলম বলেন, প্রস্তুতকৃত মুড়ির প্যাকেটের মোড়কে মেয়াদ-মূল্য উল্লেখ না করা, আয়োডিন বিহীন ইন্ডাসট্রিয়াল লবণ ও মাত্রাতিরিক্ত ফিটকারী ব্যবহার করা, নোংরা এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে যত্রতত্রভাবে মুড়ি তৈরি করায় নারান্দিয়া এলাকায় ভেজালরোধে অভিযান চালিয়ে শিব শংকর মুড়ি মিলের এক মুড়ি ব্যবসায়ীকে ২৫ হাজার জরিমানা করা হয়েছে। এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এস আলম চিনি মিলে ভয়াবহ আগুন, নিয়ন্ত্রণে ১২ ইউনিট

ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে এস আলম চিনি মিলে ভয়াবহ আগুন লেগেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট কাজ করছে।

সেমাবার (৪ মার্চ) বিকাল ৩ টা ৫৫ মিনিটে এ ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। দাউদাউ করে জ্বলতে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে কর্ণফুলী ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ বরঞ্জীব বড়ুয়া বলেন, আমরা এখনো কাজ করছি। আগুন নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না। চন্দপুরা ও কর্ণফুলী ফায়ার সার্ভিসের মিলে সাতটি ইউনিট কাজ শুরু করে। পরে আরো পাঁচটি ইউনিটকে ডাকা হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক আবদুল মালেক বলেন, এস আলম রিফাইন্ড সুগার মিলের ৫ম তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ চলছে। কালো ধোঁয়ায় পুরো এলাকা আচ্ছন্ন হয়ে আছে, বাতাস থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে বেগ পেতে হচ্ছে।

এদিকে আগুনে ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তাও জানা যায়নি।

সর্বশেষ সংবাদ

ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড সেবা চালু করবে মোবাইল অপারেটররা
মুড়িতে মাত্রাতিরিক্ত ফিটকিরি, জরিমানা গুনলেন ব্যবসায়ী
এস আলম চিনি মিলে ভয়াবহ আগুন, নিয়ন্ত্রণে ১২ ইউনিট
শহীদ মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে ছাত্রকে গুলি করলেন শিক্ষক
আঙ্গুর-খেজুর লাগবে কেন? বরই দিয়ে ইফতার করেন: শিল্পমন্ত্রী
বিএসএমএমইউয়ে নতুন ভিসি ডা. দীন মোহাম্মদ নূরুল হক
‘ইত্যাদি’র জন্য গান গাইলেন তাহসান-ফারিণ
জামিন পেলেন পিকে হালদারের বান্ধবী অবন্তিকা বড়াল
স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে সন্ত্রাসীর গুলিতে প্রাণ হারালেন অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীও
মুহূর্তেই যেকোনো গণিতের সমাধান করে দেবে অ্যাপ
হিন্দি সিনেমা এনেও তাজ হলে দর্শক নেই!
শিল্পী সমিতির বনভোজনে হাতাহাতি, ভিডিও ভাইরাল
গাইবান্ধার ব্রহ্মপুত্রের বালুতে খনিজ সম্পদের সন্ধান
৯৯৯-এ ফোন করে ধর্ষককে ধরিয়ে দিলেন মা
গোপনে দেশ ছাড়ার বিষয়ে মুখ খুললেন শাবনূর
ধানমন্ডির টুইন পিক টাওয়ারের ১২ রেস্তোরাঁ সিলগালা
মাওলানা লুৎফুর রহমানের দাফন সম্পন্ন
১০ মার্চ থেকে ৬০০ টাকা কেজিতে মিলবে গরুর মাংস
অপরিচিত মহিলাকে 'ডার্লিং' বলা যৌন হয়রানি: কলকাতা হাইকোর্ট
আইপিএলে শাহরুখ খানের কেকেআরে যোগ দিলেন সাকিব