সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | ২ বৈশাখ ১৪৩১
Dhaka Prokash

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণসহ প্রধানমন্ত্রীর ১৫ নির্দেশনা

ছবি: সংগৃহীত

বর্তমান সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভা বৈঠকে ১৫টি নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসব নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের সব পৌরসভার মেয়র ও প্রশাসককে চিঠি পাঠিয়েছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয় থেকে সম্প্রতি তাদেরকে এ চিঠি পাঠানো হয়েছে। গত ১৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মন্ত্রিসভা কক্ষে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

সম্প্রতি পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, সরকারের বর্তমান মেয়াদে প্রথম মন্ত্রিসভা-বৈঠকে সবার প্রতি প্রধানমন্ত্রী কতিপয় নির্দেশনা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নির্দেশনাগুলো বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণসহ বাস্তবায়ন অগ্রগতি প্রতিবেদন নিয়মিত পাঠানোর জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

নির্দেশনাগুলো হলো-

১) সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগ এবং অংশীজনের সঙ্গে সমন্বয় করে মুদ্রাস্ফীতি ও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

২) পবিত্র রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার জন্য আশু ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৩) নির্বাচনী ইশতেহার ২০২৪-এ বর্ণিত প্রতিশ্রুতিগুলো বাস্তবায়নে সবাইকে আন্তরিকতার সঙ্গে সমন্বিতভাবে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। মন্ত্রণালয়/বিভাগগুলো জাতীয় বাজেট প্রণয়নকালে নির্বাচনী ইশতেহার ২০২৪ বিবেচনায় রাখবে।

8) কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি এবং খাদ্য পণ্য সংরক্ষণাগার নির্মাণে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

৫) স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের চারটি স্তম্ভ স্মার্ট সিটিজেন, স্মার্ট সরকার, স্মার্ট অর্থনীতি এবং স্মার্ট জনগণ নিশ্চিত করতে নিজ নিজ মন্ত্রণালয়/বিভাগে করণীয় চিহ্নিত করে তা বাস্তবায়ন করবে।

৬) নতুন প্রকল্প গ্রহণের ক্ষেত্রে প্রকল্পের উপকারিতা/দেশের জনগণের কল্যাণকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। বিদেশি ঋণ/সহায়তা গ্রহণকালীন যথাযথভাবে সম্ভাব্যতা যাচাই করতে হবে। এছাড়া, চলমান প্রকল্পগুলো বিশেষ করে যেগুলোর বাস্তবায়ন সর্বশেষ পর্যায়ে রয়েছে সেগুলোর প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সমাপ্ত করতে হবে।

৭) সরকারি ক্রয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। দুর্নীতি প্রতিরোধে 'জিরো টলারেন্স' নীতি অনুসরণ করতে হবে।

৮) সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি প্রকৃত উপকারভোগীর কাছে পৌঁছানো নিশ্চিত করতে হবে।

৯) সরকারের শূন্য পদগুলোতে দ্রুত জনবল নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

১০) নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।

১১) রপ্তানি বহুমুখীকরণ, নতুন নতুন বাজার অনুসন্ধান ও প্রবেশে সহায়তা করতে হবে।

১২) গার্মেন্টস সেক্টরের মতো চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাট ও পাটজাত পণ্য এবং কৃষিজাত পণ্য বিষয়ক শিল্প বিকাশে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

১৩) শিক্ষাকে কর্মমুখী করার লক্ষ্যে আইসিটি শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে।

১৪) যুবসমাজকে খেলাধুলা এবং শিল্প সংস্কৃতি চর্চায় উৎসাহ দেওয়ার মাধ্যমে তাদের মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থেকে বিরত রাখতে হবে।

১৫) অগ্নিসন্ত্রাস ও নাশকতার বিরুদ্ধে সমন্বিতভাবে কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম: ওবায়দুল কাদের

বক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির কার্যালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এ দেশের অস্তিত্বের মূলে আঘাত করতে চায়। মুক্তিযুদ্ধে বিএনপির কোনো ভূমিকা ছিল না। বিএনপিই তো তখন ছিল না। তারা তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অনুভব করবে না।

বিএনপি সন্ত্রাসী সংগঠন মন্তব্য করে তিনি বলেন, বাঙালি জাতিসত্তা যে দিনটি ধারণ করে সেই দিনটিকেই তারা অস্বীকার করে। তারা তো বাংলার সংস্কৃতিকে অস্বীকার করে। মুক্তিযুদ্ধকে অস্বীকার করে।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি যদি বাংলা সংস্কৃতিকে বিশ্বাস করত, তাহলে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকেও বিশ্বাস করত। বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বাঙালির চেতনা বিশ্বাস করবে, তা আশা করা যায় না। তারা তো স্বাধীনতাবিরোধী দল। সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসী সংগঠন।

বিএনপির ২০ হাজার নেতাকর্মী কীভাবে ৬০ লাখ হলো এ বিষয়ে মির্জা ফখরুলকে চ্যালেঞ্জ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের আটক করা হয়েছিল ২০ হাজার, হয়ে গেল ৬০ লাখ। আমি তাকে (মির্জা ফখরুল) চ্যালেঞ্জ করছি সে যেন অবিলম্বে সেই তালিকা প্রকাশ করে। নয়তো মিথ্যাচারের জন্য তাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বিষয়ে ঈদের আগে যেমন অভিযান চলেছে তেমনি এখনও চলবে। যতদিন জনগণের সমস্যা থাকবে ততদিন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টানতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গোবিন্দগঞ্জে অটোচালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

গোবিন্দগঞ্জ থানা। ছবি: ঢাকাপ্রকাশ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে আটোচালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার সাপমারা ইউপির সিন্টাজুরি এলাকা মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত দুলা মিয়া একই ইউনিয়নের তরফ কামাল গ্রামের নবানু মিয়ার পুত্র।

স্থানীয়দের ধারণা দুর্বৃত্তরা তার গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত করলে তার গলা কেটে দুলা মিয়া মারা যায়। পরে পথচারীরা মরদেহ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার মরদেহ ও জমির মধ্যে থেকে তার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটি উদ্ধার করে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুল আলম শাহ্ বলেন, এটি একটি পূর্বপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের ঘটনা বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার কাছে থাকা টাকা মোবাইল ফোন কোন কিছুই খোয়া যায়নি। এমনকি তার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটিও রাস্তার পার্শ্বে থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

চট্টগ্রামে ২টি বস্তিতে আগুন, পুড়ল ২০০ ঘর

চট্টগ্রামে ২টি বস্তিতে আগুন। ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রামের ফিরিঙ্গি বাজারে টেকপাড়া বস্তি ও লাগোয়া এয়াকুব নগর বস্তিতে আগুন গেলে পুড়ে গেছে প্রায় ২০০ ঘর।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিসের নয়টি ইউনিট এক ঘণ্টা চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ফায়ার সার্ভিসের চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপ-সহকারী পরিচালক মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, সোমবার দুপুর ১টা ২০মিনিটে বস্তিতে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের নন্দনকানন, লামারবাজার, চন্দনপুরা ও আগ্রাবাদ স্টেশনের নয়টি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা এ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে তা জানাতে পারেননি ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা। তবে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক দিনমনি শর্ম্মা বলেন, নারিকেল গাছে বিদ্যুতের তার লেগে আগুন জ্বলে ওঠে। সেই আগুনের ফুলকি বস্তিতে পড়ে এ ঘটনা ঘটেছে। তবে বস্তির বাসিন্দারা নিরাপদ আছেন।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ফিরিঙ্গিবাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব বলেন, ‘আগুন লাগার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ছুটে এসেছি। স্থানীয়দের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। টেকপাড়া বস্তি আর এয়াকুব নগরের পেছনের অংশ জুড়ে কিছু ঘর আছে, সেগুলোতেও আগুন লেগেছে। মেয়র মহোদয়, জেলা প্রশাসক ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কথা হয়েছে। কত লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা তালিকা করে তারা জানাতে বলেছেন।’ তবে প্রায় দুইশ ঘর পুড়েছে বলে জানান তিনি।

কর্ণফুলী নদীর অদূরে টেকপাড়া বস্তির পাশেই মরিয়ম বিবি খাল। বস্তির বেশিরভাগ টিনশেড ঘরই পুড়ে গেছে। স্থানীয়রা জানান, বস্তির এসব ঘরে গ্যাস সিলিন্ডার ছিল, তবে আগুন লাগার পর তাৎক্ষণিকভাবে সেগুলো বের করে ফেলা সম্ভব হয়। যার কারণে বড় ধরণের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে আশপাশের বসতিগুলো।

সর্বশেষ সংবাদ

বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম: ওবায়দুল কাদের
গোবিন্দগঞ্জে অটোচালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার
চট্টগ্রামে ২টি বস্তিতে আগুন, পুড়ল ২০০ ঘর
পার্পল ক্যাপের লড়াইয়ে মুস্তাফিজের অবস্থান এখন কোথায়?
পাঁচ দিনের ছুটিতে পদ্মা সেতুতে ১৪ কোটি টাকা টোল আদায়
মধ্যপ্রাচ্য ধ্বংসাত্মক যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে: জাতিসংঘের মহাসচিব
গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে বাংলাদেশের ১৬০ কেজি ওজনের পাঙ্গাস
প্রবাসী আয়ের শীর্ষে ঢাকা, তারপর চট্টগ্রাম সিলেট কুমিল্লা
প্রথমবারের মতো কান চলচ্চিত্র উৎসবে সৌদি আরবের সিনেমা
ইরানে হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করল ইসরায়েল
৬ বিভাগে বইছে তাপপ্রবাহ, আরও বাড়বে গরমের দাপট
এত অল্প সময়ে জাহাজ ও নাবিকদের মুক্তির ঘটনা নজিরবিহীন: নৌপ্রতিমন্ত্রী
৬৭০ পদে পেট্রোবাংলায় বিশাল নিয়োগ, আবেদন অনলাইনে
মামার বিয়েতে এসে নদীতে নিখোঁজ শিশু, ২১ ঘণ্টা পর ভেসে উঠলো মরদেহ
বায়ার্ন-রাজত্বের অবসান, জার্মানির নতুন চ্যাম্পিয়ন লেভারকুসেন
রাস্তা পার হতে গিয়ে বাস চাপায় প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী
সিলেটে বিদ্যুৎকেন্দ্রে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট
'আদম' সিনেমার নির্মাতা আবু তাওহীদ হিরণ মারা গেছেন
পাঁচ দিনের ছুটি শেষ, আজ খুলছে অফিস-আদালত
ইরানকে দেখে নেওয়ার হুমকি ইসরায়েলের, যুক্তরাষ্ট্রের বাধা