সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪ | ২০ ফাল্গুন ১৪৩০
Dhaka Prokash

গোয়েন্দা স্যাটেলাইটে পেন্টাগন-হোয়াইট হাউসের ছবি দেখলেন কিম

স্পেস এজেন্সির কর্মকর্তাদের সাথে কিম। ছবি : সংগৃহীত

বৈশ্বিক কক্ষপথে প্রথমবারের মতো গেয়োন্দা স্যাটেলাইট পাঠিয়েছে উত্তর কোরিয়া। এবার সেই গোয়েন্দা স্যাটেলাইট মার্কিন প্রেসিডেন্টের দাপ্তরিক বাসভবন হোয়াইট হাউস ও দেশটির প্রতিরক্ষা সদর দপ্তর পেন্টাগনের ছবি তুলেছে। আর সেসব ছবি দেখেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ জানিয়েছে, স্যাটেলাইটের পাঠানো এসব ছবি দেখেছেন কিম জং উন। এটি হোয়াইট হাউস, পেন্টাগনসহ নরফক নৌঘাঁটিতে বিমানাবাহী রণতরীর ছবি পাঠিয়েছে। এ সময় বিশ্বকে নতুন বার্তা দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। দেশটি বলছে, আমরাও তোমাকে দেখতে পারি।

গত সপ্তাহে নিজেদের গোয়েন্দা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। দেশটি বলছে, যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর গতিবিধি নজরদারির জন্য এটিকে প্রস্তুত করা হয়েছে। এটি পেন্টাগন ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী, ইতালি এবং দক্ষিণ কোরিয়ার ওপরও নজরদারি চালিয়েছে।

সংবাদমাধ্যম বলছে, পিয়ংইয়ং এখনও পর্যন্ত এসব অঞ্চেলে নজরদারি করলেও তারা এসবের কোনো ছবি প্রকাশ করেনি। ফলে এটির সক্ষমতা আসলে কতটা তা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) এ গোয়েন্দা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করে উত্তর কোরিয়া। উৎক্ষেপণের পর এখনও এটির কার্যকারিতা ও সক্ষমতা যাচাই-বাছাই করা হয়নি বলে জানিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা।

ওই সময়ে কেসিএনএ জানিয়েছে, কিম দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলসহ মুখপো, কুনসান, পিইংটেক এবং ওসান শহরের ছবি পরীক্ষা করেছেন। এসব এলাকায় মার্কিন ও দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক ঘাঁটি রয়েছে। শুক্রবার সকালে স্যাটেলাইটটি এ অঞ্চল অতিক্রম করার সময় ছবিগুলো তুলেছে।

শুক্রবার কিম নিজে উত্তর কোরিয়ার জাতীয় মহাকাশ প্রযুক্তি প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি এসব ছবি পর্যবেক্ষণ করেন। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, এ স্যাটেলাইটটি মার্কিন বিমানবাহী রণতরী কার্ল ভিনশনের ছবিও ‍তুলে পাঠিয়েঠে। এটি দক্ষিণ কোরিয়ার বুসান শহরের একটি বন্দরে গত মঙ্গলবার এসে পৌঁছেছে। এরপর এটি শনিবার সকালে এটি হাওয়াই পাড়ি দিয়েছে।

উত্তর কোরিয়া এ গোয়েন্দা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পর ওকিনাওয়া জেলার বাসিন্দাদের নিরাপদে সরে যেতে সতর্কতা জারি করে জাপান, যা ৩০ মিনিট স্থায়ী ছিল। এরপর এ সতর্কবার্তা তুলে নেয় জাপান। উত্তর কোরিয়ার এই পদক্ষেপটিকে জাতিসংঘের একাধিক রেজুলেশনের ‘নির্লজ্জ লঙ্ঘন’ বলে অভিহিত করেছে হোয়াইট হাউস।

গণপরিবহনের ভাড়া কমছে!

ছবি: সংগৃহীত

ডিজেল, কেরোসিন, পেট্রোল ও অকটেনের দাম একযোগে কমানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। নতুন দামের প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে সবুজ সংকেত আসা মাত্রই যে কোনো সময় গেজেট আসতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জ্বালানি তেলের দাম কমলে গণপরিবহনের ভাড়াও কমবে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। রোববার (৩ মার্চ) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ তথ্য জানান তিনি।

এসময় প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে শুরু হবে, এখন প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। আমরা চাচ্ছি, প্রতি মাসে প্রাইসিংয়ের অ্যাডজাস্টমেন্ট হোক। আশা করছি, এই মাসে যদি প্রাইসিংয়ের অ্যাডজাস্টমেন্ট শুরু করতে পারি, এতে জ্বালানি তেলের দাম কিছুটা সাশ্রয় হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সামনের বার যদি দেখি ওয়ার্ল্ড মার্কেটে জ্বালানির দাম কিছুটা সাশ্রয়ী মূল্যে পাওয়া যাচ্ছে। তাহলে প্রাইস অ্যাডজাস্টমেন্ট হবে। সো, এটার একটা ভালো দিক আছে।’

এবার দাম কমলে গণপরিবহনের ভাড়া কমবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমার মনে হয় কমে যাওয়া উচিত। এখানে যেসব প্রতিষ্ঠান কাজ করছে, আমরা তাদের সঙ্গে বসার পরিকল্পনা নিয়েছি। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমলে, দেশে কমানো হয় না এমন অভিযোগ থেকে বেরিয়ে আসছি আমরা।

২০২২ সালের ৩০ আগস্ট জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয় করা হয়। ওইদিন ডিজেল ও কেরোসিন ১১৪ টাকা থেকে কমিয়ে ১০৯ টাকা লিটার, পেট্রোল ১৩৫ থেকে কমিয়ে ১৩০ টাকা এবং অকটেন ১৩৫ টাকা থেকে কমিয়ে ১৩০ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

এরপর নজিরবিহীন দাম বাড়ানো হয় ২০২২ সালের ৫ আগস্ট রাতে। ডিজেল ও কেরোসিন লিটার প্রতি ৩৪ টাকা এবং পেট্রোল ও অকটেনে ৪৬ টাকা দাম বাড়ানো হয়। তখন ডিজেল ও কেরোসিনের দাম ১১৪ টাকা লিটার, পেট্রোল ১৩৫ টাকা এবং অকটেন ১৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

ওই দাম বৃদ্ধির পর গণপরিবহনের ভাড়া বেড়েছিলো সর্বোচ্চ ২২ শতাংশ। তার আগে ২০২১ সালের নভেম্বরে প্রতি লিটার ডিজেল ও কেরোসিনের মূল্য ৬৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০ টাকায় করা হয়। ওই সময়েও পরিবহন ভাড়া বাড়ানো হয় প্রায় ২৭ শতাংশ।

এদিকে গণপরিবহনে ভাড়া নির্ধারণে সরকারি প্রজ্ঞাপন মানছেন না বাসমালিকরা। ২০২১ সালের ৭ নভেম্বর রাজধানী ঢাকাসহ চট্টগ্রাম মহানগরীতে গণপরিবহনের ভাড়া নির্ধারণের প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। এর পরের দিন ৮ নভেম্বর থেকে কার্যকর করার কথা থাকলেও গণপরিবহন মালিকরা তা মানছেন না।

এ নিয়ে প্রতিদিন বাসযাত্রী, কনডাকটর ও হেলাপারদের মধ্যে তর্কবিতর্ক হচ্ছে। এমনকি হাতাহাতির মতো ঘটনাও ঘটছে। আবার কোনো যাত্রী বেশি ভাড়া নেয়ার প্রতিবাদ করলে তাকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়ার মতো ঘটনাও ঘটাচ্ছেন গণপরিবহনের কোনো কোনো চালক, কনডাকটর ও হেলপার।

এখনো জ্বলছে আগুন, রমজানের জন্য রাখা ১ লাখ টন চিনি পুড়ে ছাই

চট্টগ্রামে চিনির কারখানা আগুন। ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণপাড়ে এস আলম রিফাইন্ড সুগার মিলে (চিনির কারখানা) লাগা আগুন ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। ফায়ার সার্ভিসের ১৮ ইউনিট ও নৌবাহিনী যৌথ চেষ্টায় চার ঘণ্টারও বেশি সময় চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। এতে করে কারখানায় থাকা এক লাখ টন অপরিশোধিত চিনি পুড়েছে বলে দাবি করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সোমবার (৪ মার্চ) বিকেল ৪টার দিকে কর্ণফুলী মইজ্জারটেক এলাকায় এস আলম সুগার মিলে এ আগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।

কারখানার সহকারী ফিটার মনির জানান, গোডাউনে থাকা ব্রাজিল থেকে আমদানি করা ১ লাখ মেট্রিক টন অপরিশোধিত চিনি ছিল। এগুলো রমজানকে সামনে রেখে আমদানি করা হয়েছিল। এখান পরিশোধিত হয়ে চিনিগুলো মার্কেটে যাওয়ার কথা ছিল।

আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষে থেকে কিছু না জানালেও বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করছেন মিলের কর্মচারীরা।

ওই মিলের কর্মকর্তারা বলছেন, চিনির মিলের ছয়টি গোডাউনের মধ্যে একটিতে আগুনের সূত্রপাত হয়। সেখানে আমদানি করা অপরিশোধিত চিনি রাখা ছিল। আগুনের তীব্রতা বাড়ার কারণে অন্য গোডাউনে আগুন ছড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তারা।

আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষে থেকে কিছু না জানালেও বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করছেন মিলের কর্মচারীরা।

এর আগে, বিকেলে ফায়ার সার্ভিসের আগ্রাবাদ কন্ট্রোল রুম সূত্র জানায়, বিকেল ৪টার দিকে কর্ণফুলী থানাধীন ইছানগর এলাকার চিনি মিলটির গোডাউনে আগুন লাগে। খবর পেয়ে কর্ণফুলী ও আনোয়ারা ফায়ার স্টেশন আগুন নেভাতে কাজ করছে। পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে যোগ দেয় নৌবাহিনী।

আ. লীগ দেশকে রাশিয়া-ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করছে: জয়নুল আবদিন

মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক। ছবি: সংগৃহীত

আওয়ামী লীগ বাংলাদেশকে রাশিয়া-ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক।

সোমবার (৪ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে তৃণমূল নাগরিক আন্দোলনের আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আওয়ামী লীগ মৃত ব্যক্তির ভোটে নির্বাচিত সরকার মন্তব্য করে ফারুক আরও বলেন, 'আজকে রাজপথে দাঁড়িয়ে রোজার আগে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির জন্য আমাদের বলতে হবে কেন? এই জন্য বলতে হবে, কারণ এই সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার না।'

সরকারের উদ্দেশে জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, ভোট চুরি করে ক্ষমতায় আসলেও আপনারা সরকারে আছেন। তাই বলবো, রোজার মাসে অন্তত সিন্ডিকেট বন্ধ করুন। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসুন। সিন্ডিকেটকে, শেয়ারবাজার কারা লুট করেছে, আপনারা সব জানেন।

তিনি আরও বলেন, কানাডায় কারা বেগমপাড়া বানিয়েছে, সব তথ্য বিএনপির কাছে আছে। কারা বিদেশে অর্থ পাচার করেছে, কারা শেয়ার বাজার লুটপাট করেছে-সব ঘটনার হিসাব-নিকাশ একদিন এ বাংলার মাটিতেই হবে।

কৃষক দলের সহ-সাধারণ সম্পাদক ও তৃণমূল নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি মফিজুর রহমান লিটনের সভাপতিত্বে এবং কৃষক দলের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নাঈমের পরিচালনায় এতে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ধর্মবিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জামাল, কৃষক দলের দপ্তর সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, সহ-বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মিয়া হাসান, সহ-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নাছির উদ্দিন, কেন্দ্রীয় সদস্য আবুল হোসেন প্রমুখ।

সর্বশেষ সংবাদ

গণপরিবহনের ভাড়া কমছে!
এখনো জ্বলছে আগুন, রমজানের জন্য রাখা ১ লাখ টন চিনি পুড়ে ছাই
আ. লীগ দেশকে রাশিয়া-ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করছে: জয়নুল আবদিন
‘ইমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতরা সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় আসবেন’
ওয়্যারলেস ব্রডব্যান্ড সেবা চালু করবে মোবাইল অপারেটররা
মুড়িতে মাত্রাতিরিক্ত ফিটকিরি, জরিমানা গুনলেন ব্যবসায়ী
এস আলম চিনি মিলে ভয়াবহ আগুন, নিয়ন্ত্রণে ১২ ইউনিট
শহীদ মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে ছাত্রকে গুলি করলেন শিক্ষক
আঙ্গুর-খেজুর লাগবে কেন? বরই দিয়ে ইফতার করেন: শিল্পমন্ত্রী
বিএসএমএমইউয়ে নতুন ভিসি ডা. দীন মোহাম্মদ নূরুল হক
‘ইত্যাদি’র জন্য গান গাইলেন তাহসান-ফারিণ
জামিন পেলেন পিকে হালদারের বান্ধবী অবন্তিকা বড়াল
স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে সন্ত্রাসীর গুলিতে প্রাণ হারালেন অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীও
মুহূর্তেই যেকোনো গণিতের সমাধান করে দেবে অ্যাপ
হিন্দি সিনেমা এনেও তাজ হলে দর্শক নেই!
শিল্পী সমিতির বনভোজনে হাতাহাতি, ভিডিও ভাইরাল
গাইবান্ধার ব্রহ্মপুত্রের বালুতে খনিজ সম্পদের সন্ধান
৯৯৯-এ ফোন করে ধর্ষককে ধরিয়ে দিলেন মা
গোপনে দেশ ছাড়ার বিষয়ে মুখ খুললেন শাবনূর
ধানমন্ডির টুইন পিক টাওয়ারের ১২ রেস্তোরাঁ সিলগালা