সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪ | ৩ আষাঢ় ১৪৩১
Dhaka Prokash

সাভারে দুই নেতার বিরুদ্ধে মার্কেট দখল চেষ্টার অভিযোগ

সাভারে দাবি করা চাঁদা না দেওয়ায় জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার মার্কেট দখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও জাতীয় পার্টির দুই নেতার বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযুক্ত দুই নেতাসহ তাদের বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থা কর্তৃপক্ষ।

অভিযুক্তরা হলেন-সাভার পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা থানার হেফজু মিয়ার ছেলে বর্তমানে সাভার পৌরসভার মজিদপুর এলাকার বাসিন্দা ও একাধিক মামলার আসামি পাভেল আহমেদ (৩৫), সাভার পৌরসভার ব্যাংক কলোনী এলাকার আবেদ আলীর ছেলে ও জাতীয় পার্টির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বাহাদুর ইমতিয়াজ(৪৮), সাভার পৌর এলাকার মজিদপুরের সাদেক আলী ফরাজির ছেলে আব্দুল সালাম ফরাজী (৪৫), একই এলাকার আফসার উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩৮) ও আমিন মিয়ার ছেলে বেলাল উদ্দিন মনা (৪০), শাহীবাগ এলাকার রুহুল আমিন মিস্ত্রির ছেলে মোহাম্মদ রিপন (৩৭)। এ ছাড়াও শীর্ষ সন্ত্রাসী পাভেল আহমেদ ওরফে তোতলা পাভেলের ভাই ইউসুফসহ আরো ১৫ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পাভেল ও ইমতিয়াজ বাহিনীর একটি চাঁদাবাজ চক্র জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার জমিদারি ভাড়া উত্তোলন করার টাকা থেকে দৈনিক, মাসিক ও এককালীন মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছে। অন্যথায় মার্কেটের ভাড়া উত্তোলন করতে দিবে না, প্রয়োজনে তাদের বাধা উপেক্ষাকারী সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রাণনাশ করা হবে।

অভিযোগ সূত্রে আরও জানা যায়, গত ৮ ফেব্রুয়ারি সাভার উপজেলায় মানববন্ধনসহ মার্কেটের মসজিদের মাইকে মাইকিং করে জমিদারি ভাড়া দেওয়া থেকে বিরত থাকতে দোকান মালিকদের নির্দেশ দেয় অভিযুক্ত দুই নেতার নেতৃত্বে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা বিভিন্ন ভুয়া কমিটি। সেইসঙ্গে অভিযুক্তরা সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ভয়-ভীতি প্রদর্শনসহ প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন এবং মার্কেটের সৌচাগার দখল করাসহ মার্কেটের সামনের অংশে নির্মাণাধীন রিজাব ট্যাংকের উপর দোকান বসিয়ে দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

এ ছাড়াও পাভেল বাহিনীর অফিসে ডেকে নিয়ে আটকে রেখে দাবি করা চাঁদা আদায় না হওয়া পর্যন্ত সংস্থার কর্মচারী দেলোয়ার হোসেন দুলাল ও মোহাম্মদ কামালকে জমিদারি ভাড়া উত্তোলন বন্ধ করতে ভয়-ভীতি দেখানো হয়। পরে পুলিশের সহযোগিতায় তাদের উদ্ধার করে সংস্থার লোকজন।

অভিযোগের অনুসন্ধানে জানা যায়, গত এক সপ্তাহে জায়গা অনুযায়ী জনপ্রতি ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা করে এককালীন নিয়ে অর্ধশতাধিক হকারকে মার্কেটের সামনে বসিয়ে প্রায় ৩০ লাখ টাকা আদায় করে দৈনিক ও মাসিক চুক্তিতে ভাড়া দিয়েছেন তারা (অভিযুক্তরা)।

এ বিষয়ে জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার চেয়ারম্যান মো: নুরুল আলম সিদ্দিক ঢাকাপ্রকাশ-কে বলেন, হত্যা চেষ্টার ও চাঁদাবাজি মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে জামিনে এসে পুনরায় আরও এক কোটি টাকা দাবি করে পাভেল বাহিনী। দাবি করা চাঁদার টাকা না দেওয়ায় মার্কেটের একটি দোকান দখল করে অফিস বানিয়ে ফুটপাতে দোকান বসিয়ে জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার সম্পূর্ণ মার্কেট দখলের পায়তারা করছে তারা।

তিনি আরও বলেন, কিছুদিন পূর্বেও দখল চেস্টায় গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার নির্বাচন ঠেকাতে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে একাধিক রিট পিটিশন দায়ের করে ব্যর্থ চেষ্টা চালায় পাভেল আহমেদ ও বাহাদুর ইমতিয়াজ বাহিনীর সদস্যরা।

এ প্রসঙ্গে জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার মহাসচিব মো. আইয়ুব আলী হাওলাদার ঢাকাপ্রকাশ-কে বলেন, জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার পরিচালনা কমিটির নির্বাচনে জয়লাভের পর দখলের আশঙ্কা ও প্রতিকার চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র সচিব, ঢাকা রেঞ্জের উপ-মহাপুলিশ পরিদর্শক, ঢাকা জেলা প্রশাসক, ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-৪), সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সাভার মডেল থানায় আমরা অভিযোগ দায়ের করেছি।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) নয়ন কারকুন বলেন, অভিযোগ তদন্ত করা হচ্ছে। দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দখল চেষ্টার ব্যাপারে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা পিপিএম বলেন, যত বড় ক্ষমতার অধিকারী হোক না কেন জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থা মার্কেট দখল করার কোনো সুযোগ নেই।

উল্লেখ্য, জাতীয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মার্কেটের দোকানে দাবি করা চাঁদা না দেওয়ায় এবং দোকানিকে আটকে রেখে নির্যাতনের ঘটনায় এই বছরের ২৪ জানুয়ারি শীর্ষ সন্ত্রাসী পাভেল আহমেদ ওরফে তোতলা পাভেলকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠায় সাভার মডেল থানা পুলিশ। জামিনে মুক্ত হয়ে ফের মার্কেট দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে সন্ত্রাসী পাভেল বাহিনী।

এসআইএইচ

Header Ad

বিদেশের ওপর নির্ভর করে আওয়ামী লীগ সরকার টিকে আছে : মির্জা ফখরুল

ছবি: সংগৃহীত

আওয়ামী লীগ সরকার একটি নতজানু সরকার, বিদেশের ওপর নির্ভর করে তারা ক্ষমতায় টিকে আছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর । তিনি বলেন, ‘আমাদের ভূখণ্ড সেন্টমার্টিনে গোলাগুলি হচ্ছে। মিয়ানমারের যুদ্ধজাহাজও সেখানে দেখা যাচ্ছে। দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি আঘাত আসছে। আর তারা বলছে (সরকার)- আমরা দেখছি।’

রোববার দুপুর ২টায় ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ীতে নিজ বাসভবনে মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

সরকারের কঠোর সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনে যাওয়ার আমাদের আন্তর্জাতিক যে সমুদ্র পথ সে পথে আমরা যেতে পারছি না। এটা বাংলাদেশের জন্য হুমকি।

দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো- এই অনির্বাচিত সরকার, দখলদারিত্বের সরকার এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো স্টেটমেন্ট দেয়নি। কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। আলোচনা করবে বলছে; কিন্তু কোনো আলোচনা এখন পর্যন্ত আমরা শুনিনি। তাহলে এ সরকারের প্রতি মানুষ কী করে আস্থা রাখবে। এটি (আওয়ামী লীগ) একটি নতজানু সরকার। বিদেশের ওপর নির্ভর করে এই সরকার টিকে আছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘যেসব কর্মকর্তা-কর্মকারী মনে করছেন যে আওয়ামী লীগকে সমর্থন করে, লুটপাট করে, বিএনপিকে নির্যাতন করে টিকে থাকতে পারবেন; তারা তা পারবেন না। আল্টিমেটলি এভাবে টিকে থাকা যায় না। তার প্রমাণ বেনজীর ও আজিজ। আওয়ামী লীগ সরকারই তাদেরকে বলির পাঁঠা বানিয়েছে।

‘এখন সাবেক ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়ার ফিরিস্তি পত্রিকায় বের হয়েছে। একে একে সবার থলের বিড়াল বেরিয়ে আসে। এ সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে তাদেরকে চুরির সুযোগ দিচ্ছে। তারা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। সরকার ফেল। তাদের উচিত পদত্যাগ করা।’

ফখরুল বলেন, ‘নির্বাচন একটা তামাশা। এটা করতে হয় তাই আওয়ামী লীগ করছে। নির্বাচনের আগেই বিরোধী দলের সিনিয়র নেতাদের গ্রেপ্তার করে তারা জেলে পাঠিয়েছে। মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।

‘ভারতেও নির্বাচনের আগে বিরোধী নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। তাদের ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করা হয়েছে। তার কারন হলো যারা শাসন ক্ষমতায় থাকে তারা গণএন্ত্র বিশ্বাস করে না।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সাহস করে যদি আপনারা না দাঁড়ান তাহলে সংবাদ মাধ্যমে টিকে থাকতে পারবেন না। আওয়ামী লীগ সরকারই ১৯৭৫ সালের ১৬ জুন চারটি পত্রিকা রেখে বাকি সব পত্রিকা বন্ধ করে দিয়েছিল।

‘সাংবাদিকরা তখন ভিক্ষা করতেন, ফল বিক্রি করতেন। এখন অনেকটিভি চ্যানেল হয়েছে। কিন্তু কোনো সাংবাদিক তার মালিকের হুকুম ছাড়া কিছুই করতে পারেন না।’

মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমীন, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হামিদ, পৌর বিএনপির সভাপতি শরিফুল ইসলাম শরিফ, আবু নুর চৌধুরীসহ অন্যান্য নেতা।

ঈদের দিন তিন বিভাগে ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা

ছবি: সংগৃহীত

ঈদের দিন তিন বিভাগে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আবার কোনো কোনো স্থানে তাপপ্রবাহের সম্ভাবনাও আছে। এর পাশাপাশি দু–এক বিভাগে মেঘলা আকাশ এবং সামান্য বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

তথ্য মতে, দেশজুড়ে টানা বা ভারী বৃষ্টি হবে নেই। দেশের বড় অংশজুড়ে ওই দিন ভ্যাপসা গরমের ভাবটা থাকতে পারে। এর কারণ হলো, বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ অনেক বেশি। তাই তাপমাত্রা হয়তো খুব বেশি না থাকলেও অস্বস্তি চরমে উঠতে পারে। আজ রোববারও দেশের একটি বড় অংশজুড়ে তাপমাত্রা বাড়তি, আছে অস্বস্তিও।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশীদ আজ বলেন, ঈদের দিনের আবহাওয়া পরিস্থিতিতে তিন ভাগে ভাগ করা যেতে পারে। প্রথমত, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগে ওই দিন বৃষ্টি হতে পারে। এই তিন বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টিরও সম্ভাবনা আছে। এসব এলাকার তাপমাত্রা সহনীয় থাকতে পারে। ঈদের দিন চট্টগ্রাম বিভাগে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। তবে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা কম।

বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী বিভাগে ঈদের দিন তাপমাত্রা অপেক্ষাকৃত বেশি থাকতে পারে বলে জানান বজলুর রশীদ। তিনি বলছিলেন, এই তিন বিভাগের কোথাও কোথাও সামান্য বৃষ্টি হতে পারে। তবে তা দীর্ঘস্থায়ী হবে না। খুলনা ও বরিশালে তাপমাত্রা একটু বেশি থাকতে পারে। কোথাও কোথাও তা ৩৬ থেকে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকতে পারে। এ বিভাগের কিছু জায়গায় আকাশ মেঘলা থাকতে পারে।

খুলনা বিভাগে টানা কয়েক দিন মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। গতকাল শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল খুলনায়, ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ বিভাগে আবহাওয়া অধিদপ্তরের ১০টি স্টেশনের মধ্যে কুমারখালী ও নড়াইল বাদ দিয়ে বাকিগুলোতে তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি ছিল। তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি থাকলে তাকে মৃদু তাপপ্রবাহ বলে ধরা হয়।

ঈদের দিন তাহলে ঢাকার আবহাওয়া কেমন থাকবে—এ প্রশ্নে বজলুর রশীদ বলেন, ঢাকার আকাশ ওই দিন মেঘলা থাকতে পারে। আর বিকেলের দিকে কিছুটা বৃষ্টি হতে পারে। তবে বৃষ্টি দীর্ঘস্থায়ী হবে না। ঢাকায় ঈদের দিন বৃষ্টি হলেও তা গরম কমাবে না বলেই মনে হয়।

যদিও এখন তাপমাত্রা এপ্রিলের সেই তীব্র বা অতি তীব্র তাপপ্রবাহ নেই। কিন্তু এর মধ্যেও গরমের অনুভূতি হচ্ছে প্রচণ্ড। ঘাম ঝরছে খুব। এর কারণ হিসেবে বজলুর রশীদ বলেন, ‘এখন বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ খুব বেশি। গতকাল ঢাকায় আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৮৯ ভাগ। ঈদের দিনেও আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকতে পারে। তাই গরমের অনুভব হবে বেশি।

আজ সকাল ছয়টায় ঢাকার বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল ৮৯ ভাগ।

আকাশ মেঘলা থাকলে একটা বড় বিপত্তি দেখা দেয়। সেটা হলো, ভূপৃষ্ঠে তৈরি হওয়া তাপ আটকে থাকে। এতে গরমের অনুভূতি বেশি হয়। ঈদের দিন অন্তত ঢাকার আকাশ মেঘলা থাকলে গরমে অস্বস্তি বেশি হতে পারে বলে জানান বজলুর রশীদ।

দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি: সংগৃহীত

ঈদুল আজহার ত্যাগের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ ও জনগণের কল্যাণে আত্মনিয়োগ করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল (১৭ জুন) দেশে উদযাপিত হবে মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎসব ঈদুল আজহা।

রোবাবার (১৬ জুন) তিনি দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানাতে এক ভিডিও বার্তায় বলেন, প্রিয় দেশবাসী, আসসালামু আলাইকুম, এক বছর পর আবারও আমাদের জীবনে ফিরে এসেছে পবিত্র ঈদুল আজহা। আমি আপনাদেরকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানাই।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, আসুন ঈদুল আজহার শিক্ষা গ্রহণ করে ত্যাগের মহিমায় উজ্জ্বীবিত হয়ে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করি।

বার্তার শেষে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পবিত্র ঈদুল আজহা আপনার জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল আনন্দ, সুখ, শান্তি ও স্বাচ্ছন্দ। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন। ঈদ মোবারক।

সর্বশেষ সংবাদ

বিদেশের ওপর নির্ভর করে আওয়ামী লীগ সরকার টিকে আছে : মির্জা ফখরুল
ঈদের দিন তিন বিভাগে ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা
দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী
সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে গাইবান্ধায় ঈদুল আজহা উদযাপন
ঘোড়াঘাটে ভূমি দখলকারীর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি
ঈদের দিন পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার ও জাদুঘর সকল দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ থাকবে
ছাত্রদলের ২৬০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা
দায়িত্বের এ জীবন কঠিন হলেও সুন্দর : বাবা দিবসে পরীমণি
কুড়িগ্রামে আলোচিত গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় সোলায়মানকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব
জাতীয় ঈদগাহে ৫ স্তরের নিরাপত্তা: ডিএমপি কমিশনার
জেনে নিন ঢাকায় কখন কোথায় ঈদের জামাত
ঈদের দিনেও রেহাই নেই গাজার বাসিন্দাদের
চাঁদপুরের অর্ধশত গ্রামে পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা
বঙ্গবন্ধু সেতুতে টোল আদায়ে ফের রেকর্ড, ২৪ ঘণ্টায় অর্ধলাখ যানবাহন পারাপার
শেষ মুহূর্তে নাড়ির টানে রাজধানী ছাড়ছেন মানুষ
অজিদের কল্যাণে সুপার এইট নিশ্চিত করলো ইংল্যান্ড
সব গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অবদান রেখেছে আওয়ামী লীগ : খাদ্যমন্ত্রী
সারাদিনের ভোগান্তির পর উত্তরের ঈদযাত্রায় ফিরেছে স্বস্তি
আর্থিক সংকটে কাঙ্খিত বেচা-কেনা হয়নি চুয়াডাঙ্গার পশুহাট গুলোতে
আনারকন্যার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ডিএমপি কমিশনার