সার-তেলের মূল্যবৃদ্ধি

'ধান চাষ ছেড়ে ঝোলা নিয়ে পথে নামতে হবে'

১১ আগস্ট ২০২২, ০৩:৪৫ পিএম | আপডেট: ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৩:০০ এএম


'ধান চাষ ছেড়ে ঝোলা নিয়ে পথে নামতে হবে'

'কষ্ট বাবা! গরিব মানুষদের ধান চাষ করাটা খুব কষ্টের। তেল, সারের দাম বেশি। কৃষিকাজ করে এখন কোনো লাভ নেই বাবা। বৃষ্টি নাই, পানি কিনে ধান চাষ করতে খুবই কষ্ট হচ্ছে। তার উপর সার, তেলের দাম যেভাবে বাড়ছে এভাবে চলতে থাকলে ধান চাষ ছেড়ে ঝোলা নিয়ে পথে নামতে হবে।'

নওগাঁ সদর উপজেলার তিলেকপুর ইউনিয়নের তাজনগর গ্রামের কৃষক আব্দুস কুদ্দুসের মতো এরকম দুশ্চিন্তায় পড়েছেন জেলার হাজারো কৃষক।

চলতি আমন মৌসুমে নওগাঁয় দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ ১ লাখ ৯৭ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ধান উৎপাদনে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখা এ জেলার কৃষকদের এখন দুর্ভাবনায় দিন-রাত কাটছে। কারণ রোপা আমনের ভরা মৌসুমে কয়েকদিনের ব্যবধানে ইউরিয়া ও ডিজেলের দাম বাড়ার ফলে ব্যয় মেটাতে নাজেহাল অবস্থা কৃষকদের।

কৃষকরা বলছেন, চলতি আমন মৌসুমে সার ও ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির ফলে উৎপাদন ব্যয় উঠবে কি না তা নিয়ে সন্দেহ আছে। বেশি সমস্যায় বর্গাচাষি ও ক্ষুদ্র কৃষকরা। তাদের মতে, সার ও ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির ফলে প্রতি বিঘায় ধান উৎপাদনে বাড়তি ৫-৬ হাজার টাকা খরচ পড়বে। প্রতি বিঘা জমিতে ১২-১৩ হাজার টাকা ব্যয়ে ফসল উৎপাদন করে ন্যায্যমূল্য না পেলে বড় ধরনের সংকটে পড়তে হবে তাদের।

বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশন (বিএফএ) নওগাঁ জেলা শাখা সূত্রে জানা যায়, জেলায় প্রায় ৬৬ হাজার পরিবার কৃষির সঙ্গে সম্পৃক্ত। জেলায় বিসিআইসি ও বিএডিসি অনুমোদিত সার ডিলার রয়েছেন ৩৩৩ জন। চলতি মাসে জেলায় ইউরিয়া সারের বরাদ্দ ৯ হাজার ২৯৩ মেট্রিক টন, টিএসপি ৮৯৭ টন, ডিএপি ২ হাজার ৫৪৩ টন ও এমওপি সারের বরাদ্দ ১ হাজার ৭৯৬ টন।

কেজিপ্রতি ৬ টাকা মূল্যবৃদ্ধির ফলে কেবল ইউরিয়া সার ব্যবহারের কারণে ১৫০ কোটি টাকা বাড়তি খরচ হবে। এ ছাড়া ডিজেলের দাম বাড়ার ফলে বাড়তি চাষ ও সেচ খরচ যোগ হবে।

সদর উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রামের কৃষক দুলাল ঢাকাপ্রকাশ-কে বলেন, তেলের দাম বেশি। আগে ১৬ টাকা কেজিতে যে সার ছিল এখন তা ২৬ টাকা দরে কিনতে হচ্ছে। তাহলে কীভাবে চাষাবাদ করব? চাষাবাদ করে খরচের টাকা উঠে না। আগে এক বিঘা জমি চাষাবাদ করতে ৬-৮ হাজার টাকা লাগত এখন ১২-১৩ হাজার টাকা খরচ পড়ছে। কৃষক মানুষ চাষাবাদ করেই খেতে হবে। তাই ধার দেনা করে চাষাবাদ করছি।

নওগাঁ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক এ কে এম মঞ্জুরে মওলা ঢাকাপ্রকাশ-কে বলেন, চলতি আমন মৌসুমে জেলায় আমন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লাখ ৯৭ হাজার ২০০ হেক্টর, বেশ কিছুদিন যাবত তীব্র খড়া ও পানি সংকট। বৃষ্টি নেই বললেই চলে। মাঝে কয়েকদিন বৃষ্টি হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অগ্রগতি ৭১ শতাংশ। বৃষ্টি কম হওয়ার কারণে রোপণের গতি অনেকটাই কম। বৃষ্টি স্বাভাবিক থাকলে হয়তো আমরা চূড়ান্ত লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে পারতাম। আমরা এখন পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আশাবাদী। আমাদের যেসব ডিপ ও শ্যালো টিউবওয়েল চালু রয়েছে এসব নিয়ে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ থেকে শুরু করে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক করেছি। আশা করি আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারব।

তিনি কৃষকদের উদ্দ্যেশে বলেন, এ মুহূর্তে কৃষকদের জন্য পরামর্শ যারা দেরিতে ধান রোপণ করেছেন তারা চারার সংখ্যা অধিক দিবেন। প্রতি গোছায় ৭-৮টি চারা এবং খুব ঘন করে যতটুকু সম্ভব চারা রোপণ করবেন।

তিনি আরও বলেন, এমওপি সার পরিবহনের বিষয়ের সমস্যা আছে। যা দু-একদিনের মধ্যেই কেটে যাবে বলে আশা করছি। চলতি মাস ও গত মাস মিলিয়ে প্রায় ২৬০০ টন সার পাইনি। যা সান্তাহার গোডাউনে সংরক্ষিত আছে। আমরা বিএডিসি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি, আগামী দু-একদিনের মধ্যেই সান্তাহার গোডাউন থেকে আমাদের সরবরাহকৃত এমওপি সার সরবরাহ করা হবে।

এসজি/


বিভাগ : সারাদেশ



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২৩ ফেব্রুয়ারি

০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০১:৪৬ পিএম | আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:০০ পিএম


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২৩ ফেব্রুয়ারি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা। ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের আন্ডারগ্রাজুয়েট (স্নাতক) প্রোগ্রামের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে। কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের পরীক্ষা দিয়ে শুরু হবে এবারের ভর্তিযুদ্ধ।

এরপর ২৪ ফেব্রুয়ারি বিজ্ঞান, বাণিজ্য ১ মার্চ এবং ২ মার্চ চারুকলা অনুষদের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার (০৫ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এবারও ঢাকাসহ মোট আট বিভাগীয় শহরে অনুষ্ঠিত হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা। এছাড়া অন্যান্য নিয়মও বিগত বছরকে অনুসরণ করে হবে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল।

সারাদেশের কেন্দ্রগুলো হলো- ঢাকা বিভাগের পরীক্ষা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে, রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে, সিলেট বিভাগের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে, বরিশাল বিভাগের বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে, খুলনা বিভাগের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে, রংপুর বিভাগের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ও ময়মনসিংহ বিভাগের পরীক্ষা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

নম্বর বন্টন-

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লিখিত এবং এমসিকিউ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বিজ্ঞান, কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটে ৬০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা ও ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। উভয় পরীক্ষার জন্য সময় থাকবে ৪৫ মিনিট করে। তবে চারুকলা ইউনিটে ৪০ (সাধারণ জ্ঞান) নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা ও ৬০ (অংকন) নম্বরের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এমসিকিউর জন্য সময় থাকবে ৩০ মিনিট ও লিখিতের জন্য সময় থাকবে ৬০ মিনিট।

এর আগে গত ২৬ নভেম্বর ২০২৩ সালের উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়। এ পরীক্ষায় অংশ নেয় ১৩ লাখ ৫৯ হাজার ৩৪২ জন পরীক্ষার্থী। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, পরীক্ষায় পাস করেছেন ১০ লাখ ৬৭ হাজার ৮৫২ শিক্ষার্থী। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯২ হাজার ৫৯৫ জন পরীক্ষার্থী।


সিআইডি অভিনেতা দিনেশ ফাডনিস মারা গেছেন

০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০১:৪৫ পিএম | আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:০১ পিএম


সিআইডি অভিনেতা দিনেশ ফাডনিস মারা গেছেন
ছবি সংগৃহিত

ভারতে দীর্ঘ সময় ধরে চলা জনপ্রিয় শো ‘সিআইডি’র অন্যতম অভিনেতা দীনেশ ফাডনিস মারা গেছেন। সিআইডিতে ফ্রেডেরিকস চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন দীনেশ ফাডনিস। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে মারা যান এই অভিনেতা। মৃত্যকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর।

টাইমস অফ ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন অনুসারে, অভিনেতার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন দীনেশের সিআইডি সহ-অভিনেতা দয়ানন্দ শেঠি। যিনি সিআইডি শো’তে দয়ার চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তিনি বলেন, ‘রাত ১২.০৮ মিনিটে দীনেশ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।’ অভিনেতা মুম্বইয়ের তুঙ্গা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

দয়ানন্দ শেঠি জানিয়েছেন যে দীনেশ ‘মাল্টি অর্গান ফেলিওর’-এর কারণে মারা গেছেন। তিনি বলেন, দীনেশের অনেক জটিলতা ছিল এবং গতকাল রাতে তাকে ভেন্টিলেটর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে, রবিবার দীনেশ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিল, পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে, দয়ানন্দ শেঠি নিশ্চিত করেছিলেন যে দীনেশের হার্ট অ্যাটাক আক্রান্ত হয়নি কিন্তু লিভারের ক্ষতি হয়েছে।

তবে শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর সঙ্গে লড়াইয়ে হেরে গেলেন এই জনপ্রিয় অভিনেতা।
দীনেশ সিআইডিতে ফ্রেডেরিকস চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে ভারতের জনপ্রিয় টিভি অভিনেতাদের মধ্যে একজন হয়ে ওঠে। প্রায় ২০ বছর ধরে শোটির অংশ ছিলেন তিনি। ১৯৯৮ সালে প্রথম পর্ব সম্প্রচারিত হয়েছিল এটির এবং এটি ভারতের সবচেয়ে দীর্ঘমেয়াদি টেলিভিশন শোগুলোর মধ্যে একটি। সিরিজটি ২০ বছর ধরে সনি টিভিতে প্রচারিত হয়েছে।

সিআইডি ছাড়াও, দীনেশকে হিট টিভি শো ‘তারাক মেহতা কা উল্টা চশমা’তে একটি ক্যামিও চরিত্রে দেখা গিয়েছিল। কয়েকটি সিনেমায় ছোট চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ‘সারফারোশ’ এবং ‘সুপার ৩০’-এর মতো হিন্দি চলচ্চিত্রে দেখা গেছে এই অভিনেতাকে।


যে ৭ জেলায় ৬০ কি.মি. বেগে ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০১:২৭ পিএম | আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:০১ পিএম


যে ৭ জেলায় ৬০ কি.মি. বেগে ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস
ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস। ফাইল ছবি

দেশের ৭ জেলার ওপর দিয়ে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার জেলার ওপর দিয়ে পূর্ব অথবা দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘মিগজাউম’ আরও উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে (১৮তম) জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় ‘মিগজাউম’ গতকাল মধ্যরাতে (৪ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১৫৪০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১৫১০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ১৩৬০ কিলোমিটার, দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১৩৯০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর- উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ৫ ডিসেম্বর ভোররাত নাগাদ নিলর ও মাসুলিপট্টমের নিকট দিয়ে ভারতের অন্ধপ্রদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটার এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ২ নম্বর (পুন:) ২ নম্বর দূরবর্তী হুশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

অনুসরণ করুন