যেসব ফল ও খাবার একসঙ্গে খাবেন না

১৪ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:৩৩ পিএম | আপডেট: ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ০৪:৪৮ এএম


যেসব ফল ও খাবার একসঙ্গে খাবেন না

সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হলে ফল ও সবজি খাওয়ার বিকল্প নেই। শরীরের প্রয়োজনীয় উপাদান যেমন- ভিটামিন ও মিনারেল, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ফাইবার, ফ্ল্যাভনয়েডস ইত্যাদি থাকে ফল সবজিতে। নিয়মিত ফল খেলে দূরে থাকতে পারবেন হার্টের রোগ, ক্যান্সার, বিভিন্ন ধরনের প্রদাহ, ডায়বেটিসের মতো সমস্যা থেকে। শরীরের সুস্থতার জন্য জরুরি সবজি খাওয়া। পুষ্টিঘাটতি পূরণ, কৌষ্ঠকাঠিন্য দূর, ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ নানা রোগের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যায় নিয়মিত সবজি খেলে।

ফল ও সবজি খাওয়া উপকারী এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু অনেকেই বুঝতে পারেন না কোন ফল কখন ও কীভাবে খাবেন, আবার কোনটার সঙ্গে কোনটা খেলে সমস্যা তৈরি করে। কিছু ফল ও সবজি একসঙ্গে খেলে শরীরে টক্সিক বা বিষজাতীয় পদার্থ উৎপাদন হয়। এ ধরনের খাবার ও ফল একসঙ্গে খেলে শরীরে বিষক্রিয়া পর্যন্ত হতে পারে।

পেঁপে ও লেবু
পেঁপে ও লেবু একসঙ্গে খেলে সমস্যা দেখা দিতে পারে শরীরে। তাই সালাদ বা অন্য কোনো খাবার তৈরির সময় এই দুই খাবার একসঙ্গে মেশাবেন না। পেঁপের সঙ্গে লেবু মিশিয়ে খেলে শরীরে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে যায় অনেকটাই। সেইসঙ্গে রক্তের ভারসাম্য নষ্ট হয়।

পেয়ারা ও কলা
অনেকে ফলের সালাদ খেতে পছন্দ করেন। এক্ষেত্রে একসঙ্গে কয়েক রকমের ফল মিশিয়ে সালাদ তৈরি করে। তবে কলা ও পেয়ারা একসঙ্গে মিশিয়ে খেলে নানা ক্ষতি হয়। পেয়ারা ও কলা একসঙ্গে খেলে হতে পারে বমি, মাথা ব্যথা, পেট ফাঁপার মতো সমস্যা।

আনারস ও দুধ
আনারস ও দুধ একসঙ্গে খেলে শরীরে বিষক্রিয়া দেখা দিতে পারে। এটি হয়তো অনেকেই জানেন তবে, সত্যি-মিথ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে। সুস্বাদু ও রসালো ফল আনারসের আছে অনেক উপকারিতা। এদিকে দুধের উপকারিতা সম্পর্কে প্রায় সবারই জানা। কিন্তু এই দুই খাবার একসঙ্গে কখনোই খাবেন না। কারণ আনারস ও দুধ একসঙ্গে খেলে তা পেট ফাঁপা, বমি বমি ভাব ইত্যাদির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। আনারসে থাকে ব্রোমেলিন নামক উপাদান যা দুধের সঙ্গে মিশলে সমস্যার সৃষ্টি করে।

তরমুজ ও পানি
তরমুজের সঙ্গে পানি মিশলে অনেকগুলো সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। এক্ষেত্রে খাবার হজমের প্রক্রিয়া ধীর হয়ে যায়। সেইসঙ্গে অ্যাসিডিটি, পেট খারাপ ইত্যাদি সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

শ্বেতসারজাতীয় ফল বা সবজির সঙ্গে প্রোটিন-সমৃদ্ধ নয়
যেসব সবজি স্টার্চ বা শ্বেতসারজাতীয়, সেসব সবজির সঙ্গে ফল মিশিয়ে খাওয়া ঠিক নয়। ভুট্টা, আলু, পানিফল ইত্যাদি। এগুলোর সঙ্গে প্রোটিনসমৃদ্ধ ফল ও সবজি যেমন- কিশমিশ, পেয়ারা, পালংশাক, ব্রকলি ইত্যাদি কখনো মেশানো উচিত নয়। কারণ প্রোটিন হজম করতে শরীরে চাই ‘অ্যাসিডিক বেইস’ আর শ্বেতসারজাতীয় খাবার হজম করতে চাই ‘অ্যালকালাইন বেইস’।

টকের সঙ্গে মিষ্টি নয়
টকজাতীয় ফল যেমন আঙুর, স্ট্রবেরি, আপেল, বেদানা ইত্যাদির সঙ্গে মিষ্টি ফল যেমন কলা বা কিশমিশ মেশানো যাবে না। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, এই মিশ্রণের কারণে বমিভাব, মাথাব্যথা ইত্যাদি হতে পারে।

মাংস ও দুধ
এই খাবার দুটি একসঙ্গে না খাওয়ার কথা অনেকে জানলেও সবসময় তা মেনে চলা হয় না। মাংসে প্রচুর প্রোটিন থাকে। এদিকে দুধও সুষম আহার। তাই এই দুই খাবার পরপর খেলে শরীরে তাৎক্ষণিক সময়ের জন্য প্রোটিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। একাধিক পুষ্টি উপাদানের মধ্যে বিশেষ কোনো ধরনের উপাদানের মাত্রাতিরিক্ত উপস্থিতি শরীরের জন্য ভালো নয়।

ঠান্ডা পানীয় ও পুদিনা
শরীরের ভেতর এই দুটি খাবার তীব্র রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটায়। এতে হজমের গোলমালতো বটেই, বিক্রিয়ায় ফলে সায়ানাইডও উৎপন্ন হতে পারে। তাই এই দুটি খাবার একেবারেই একসঙ্গে খাবেন না।

এসএন