আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলে শিক্ষার্থীদের পিঠা উৎসব

২৪ জানুয়ারি ২০২৩, ০৬:০২ পিএম | আপডেট: ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২:৩৯ পিএম


আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলে শিক্ষার্থীদের পিঠা উৎসব

'গ্রাম বাংলার রসের পিঠা-করুণ শীতে দারুণ মিঠা' এই স্লোগানে 'পিঠা উৎসব ও নবীন বরণ' অনুষ্ঠান হয়েছে। সোমবার ঢাকার সাভারস্থ আনন্দপুরের আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলে দিনব্যাপী এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারম্যান মোঃ আলেক মোহাম্মদ নান্নু।

আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলের সহকারি শিক্ষক মোঃ গোলজার হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল আওয়াল, সহকারি শিক্ষক আবুল মনসুর। আইয়ূব আলী মেমোরিয়াল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারম্যান মোঃ আলেক মোহাম্মদ নান্নু বলেন, 'যৌথ পরিবারগুলো ভেঙ্গে টুকরো টুকরো হয়ে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে গ্রামীণ পিঠাপুলির যে সংস্কৃতি তা হারিয়ে যাচ্ছে। আমাদের শিক্ষার্থীরা যেন পিঠা-পুলিগুলো চিনে এবং বানাতে পারে সেই জন্য এমন পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হচ্ছে। আর এ ধারা চলমান থাকবে।'

তিনি শিক্ষাথীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নতুন বছরের শুরু থেকে নিজের জন্য নতুন কর্মপরিকল্পনা করতে হবে। ঠিক ভাবে সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারলে তোমরা পরীক্ষার খাতায় সাফল্য পাবে। শিক্ষার কোন বিকল্প নাই। সুশিক্ষা আমাদের নানা প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করতে সহায়তা করে। তাই সকল শিক্ষার্থীদেরকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে'। অনুষ্ঠানে ২০২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন শ্রেণীতে ভর্তি হওয়া নতুন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন অনুষ্ঠানের অতিথিরা। নবীণ শিক্ষার্থীদের বরণ করা শেষে অতিথিরা পিঠা উৎসবের স্টলগুলো পরিদর্শন করেন।

পিঠা উৎসবে মোট ১২ টি পিঠার স্টল দেন স্কুলের বিভিন্ন শ্রেনীর শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ১২টি পিঠার স্টলের মধ্যে থেকে নানুর পিঠাঘর (পঞ্চম শ্রেনী) প্রথম স্থান, পিঠা পুলির আসর (দশম শ্রেনী) দ্বিতীয় স্থান, বাহরি রঙের পিঠা ঘর (সপ্তম শ্রেনী) তৃতীয় স্থান অধিকার করে।
এএজেড


বিভাগ : সারাদেশ