বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪ | ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
Dhaka Prokash

আওয়ামী লীগের সঙ্গে গণতন্ত্র যায় না: মির্জা ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগের সঙ্গে গণতন্ত্র যায় না। তারা শুধু মিথ্যা কথা বলে। নির্বাচনের সময় নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের বিকল্প নেই। আগে পদত্যাগ করুন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন। পরেরটা পরে দেখা যাবে। দেশের মানুষ সেটা জানে।

বৃহস্পতিবার (৮ জুন) দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) মিলনায়তনে ‘বাংলাদেশে গণতন্ত্র সংকট: উত্তরণ প্রয়াসে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের সংগঠন ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইউট্যাব) এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ফখরুল বলেন, আমাদের লড়াই কিন্তু বিএনপিকে ক্ষমতায় নেওয়ার জন্য নয়। লড়াই করছি দেশের মানুষের অধিকার ফিরিয়ে দিতে। গোটা দেশের মানুষ আজ আমাদের সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধভাবে অংশগ্রহণ করছেন।

আওয়ামী লীগের সমালোচনায় তিনি বলেন, দেশের মানুষ যা চায়, আওয়ামী লীগ তার উল্টো কাজ করে। তাদের সঙ্গে গণতন্ত্র যায় না। তারা সহিংস ও আক্রমণাত্মক। তারা অন্যকে কথা বলতে দেয় না। তারা নিজেরা নিজেরা লড়াই করে, তাদের কোনো কিছুই গণতান্ত্রিক নয়। বিএনপি এ ধ্বংসাত্মক মতবাদে বিশ্বাসী নয়। সবাইকে এক প্ল্যাটফর্মে আনার চেষ্টা করতে হবে।

বিএনপির আন্দোলন ভিন্নখাতে নিতে আওয়ামী লীগের নেতারা সংলাপের কথা বলছেন মন্তব্য করে ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ একটা জিনিস ভালো পারে, সেটা হচ্ছে ডাইভার্সন। আমির হোসেন আমু ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের উদ্দেশ্য হলো- বিএনপিকে মূল দাবি থেকে মনোযোগ ভিন্নখাতে নেওয়া। তাদের একটাই উদ্দেশ্য, সেটা হলো মানুষের দৃষ্টি ডাইভার্ট করা। লোডশেডিংয়ে বর্তমানে যে জনদুর্ভোগ, তা থেকে দৃষ্টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে এসব বক্তব্য দিচ্ছেন তারা।

বিদ্যুৎ প্রসঙ্গে বিএনপির এই নেতা বলেন, বিদ্যুতের জন্য এত টাকা খরচ করছে, এখন এই অবস্থা কেন? সব ক্ষেত্রে এর প্রভাব পড়েছে। এত টাকা গেল কোথায়? অর্থনীতিবিদরা বলছে, সরকারের কাছে টাকা নেই, ডলার নাই। তাই মহাসংকট তৈরি হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ২০১১ সালে শেখ হাসিনা তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল করে। তখন সংবাদ সম্মেলন করে বেগম খালেদা জিয়া বলেছিলেন, আজ এ ঘটনার মধ্যে দিয়ে দেশে চিরস্থায়ী সংকট-সংঘাত শুরু হলো। সেটাই হয়েছে এবং চলছে।

এ ছাড়া সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. নুরুল আমিন বেপারী ও সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের কাদের গণি চৌধুরী।

 

Header Ad

করোনায় আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: সংগৃহীত

আবারও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তিনি করোনার মৃদু উপসর্গে আক্রান্ত হয়েছেন। মার্কিন ডেমোক্র্যাটিক এই প্রেসিডেন্ট অবশ্য আগেই করোনার টিকা নিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং তিনি এ সংক্রান্ত কিছু হালকা উপসর্গে ভুগছেন বলে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে।

বাইডেনের প্রেস সেক্রেটারি কারিন জ্যঁ-পিয়ের বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্টকে টিকা দেওয়া হয়েছে এবং তিনি বুস্টার ডোজও নিয়েছেন। এর আগে তিনি দুবার কোভিড পরীক্ষায় পজিটিভ হয়েছিলেন।

বিবিসি বলছে, করোনায় আক্রান্ত বলে শনাক্ত হওয়ার আগে ৮১ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে বুধবার লাস ভেগাসে সমর্থকদের সাথে দেখা করতে এবং সেখানে একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করতে দেখা গিয়েছিল। রাতে নির্বাচনী প্রচারণার অনুষ্ঠানে ভাষণ দেওয়ার কথা থাকলেও পরে সেটি বাতিল করেন তিনি।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার এই খবরটি প্রেসিডেন্ট বাইডেন এমন এক সময়ে পেলেন যখন গত জুনে ট্রাম্পের সঙ্গে মুখোমুখি বিতর্কে খারাপ পারফরম্যান্সের কারণে নির্বাচনী দৌড় থেকে সরে যাওয়ার জন্য তিনি ক্রমবর্ধমান চাপের সম্মুখীন হয়েছেন।

কারিন জ্যঁ-পিয়ের বলেছেন, করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় প্রেসিডেন্ট বাইডেন এখন তার ডেলাওয়্যারের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকবেন এবং সেই সময়ে সেখান থেকেই নিজের সমস্ত দায়িত্ব সম্পূর্ণরূপে পালন করবেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ডাক্তার কেভিন ও’কনর বলেছেন, বাইডেনের সর্দি এবং কাশিসহ ওপরের শ্বাসযন্ত্রের উপসর্গগুলো রয়েছে এবং তাকে প্যাক্সলোভিডের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে।

দিনের প্রথম ইভেন্টের সময় ভালো বোধ করলেও পরে তিনি করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ হন বলে ড. ও’কনর জানান।

আজ কোটা আন্দোলনকারীদের ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি

ছবি: সংগৃহীত

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলা, সাধারণ শিক্ষার্থীদের হত্যা এবং ঢাবি প্রশাসনের নির্দেশে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের নির্বিচার হামলার প্রতিবাদে আজ (বৃহস্পতিবার) সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন।

বুধবার (১৭ জুলাই) রাতে এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচি ঘোষণা দেন আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক আসিফ মাহমুদ।

বিবৃতিতে আসিফ মাহমুদ বলেন, শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে পুলিশ, বিজিবি, র‍্যাব, সোয়াটের ন্যক্কারজনক হামলা, খুনের প্রতিবাদ, খুনিদের বিচার, সন্ত্রাসমুক্ত ক্যাম্পাস নিশ্চিত ও এক দফা দাবিতে ১৮ জুলাই সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা করছি।

তিনি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার শুধু হাসপাতাল ও জরুরি সেবা ব্যতীত কোনো প্রতিষ্ঠানের দরজা খুলবে না, অ্যাম্বুলেন্স ব্যতীত সড়কে কোনো গাড়ি চলবে না। সারা দেশের প্রতিটি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়, মাদরাসা শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানাচ্ছি, কর্মসূচি সফল করুন।

অভিভাবকদের উদ্দেশে আসিফ মাহমুদ বলেন, আমাদের অভিভাবকদের বলছি, আমরা আপনাদেরই সন্তান। আমাদের পাশে দাঁড়ান, রক্ষা করুন। এই লড়াইটা শুধু ছাত্রদের না, দলমত নির্বিশেষে এদেশের আপামর জনসাধারণের।

দেশের সব প্রতিষ্ঠানকে কর্মসূচি সফল করতে আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, শুধুমাত্র হাসপাতাল ও জরুরি সেবা ব্যতীত কোনো প্রতিষ্ঠানের দরজা খুলবে না, অ্যাম্বুলেন্স ব্যতীত সড়কে কোনো গাড়ি চলবে না। সারা দেশের প্রতিটি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়, মাদরাসা শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানাচ্ছি, ১৮ জুলাইয়ের কর্মসূচি সফল করুন।

হানিফ ফ্লাইওভারে কোটা আন্দোলন নিয়ে সংঘর্ষ, গুলিতে তরুণ নিহত

হানিফ ফ্লাইওভারে কোটা আন্দোলন নিয়ে সংঘর্ষ। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকায় দিনভর দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষ হয়েছে। রাতে হানিফ ফ্লাইওভারের টোল প্লাজা, পুলিশ বক্স সহ কিছু স্থাপনায় অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটেছে। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে সিয়াম (১৮) নামে এক তরুণ প্রাণ হারিয়েছেন।

বুধবার (১৭ জুলাই) দিবাগত রাত ১২টার দিকে মৃত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে নিয়ে আসেন কয়েকজন। পরে তার মরদেহ হাসপাতালের ভেতরে নিয়ে গিয়ে অটোরিকশায় করে নিয়ে চলে যান তারা।

সিয়ামের গ্রামের বাড়ি ভোলার চরফ্যাশনে। রাজধানীর মাতুয়াইলে থাকতেন।

সঙ্গে আসা স্বজন জানান, সিয়াম গুলিস্তানের একটি ব্যাটারির দোকানের কর্মচারী। রাতে বাসায় ফেরার পথে হানিফ ফ্লাওয়ারে সংঘর্ষের মধ্যে পড়েন। এ সময় গুলিবিদ্ধ হন। এতে ঘটনাস্থলেই সিয়াম মারা যান। পরে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে এলেও মারা গেছেন বুঝতে পেরে তারা আর হাসপাতালের ভেতর ঢোকেননি। মরদেহ অটোরিকশায় করে বাসায় চলে যান।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক তরুণকে জরুরি বিভাগে আনা হয়েছিল। তিনি মারা যাওয়ায় তার স্বজনেরা মরদেহ হাসপাতালের ভেতরে নেননি। জরুরি বিভাগের গেট থেকেই ফিরিয়ে নিয়ে গেছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

করোনায় আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন
আজ কোটা আন্দোলনকারীদের ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি
হানিফ ফ্লাইওভারে কোটা আন্দোলন নিয়ে সংঘর্ষ, গুলিতে তরুণ নিহত
শাবিপ্রবিতে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা
যাত্রাবাড়ীতে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ
ফরিদপুরে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩, আহত ৩০
কাল সারা দেশে বিক্ষোভ ডেকেছেন চরমোনাই পীর
বৃহস্পতিবার সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা কোটাবিরোধীদের
কোটা নিয়ে যেসব কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীর মাথায় পুলিশের গুলি
গায়েবানা জানাজা বলে কিছু নেই বলে ইমামকে নিয়ে গেল ওসি আমিনুল
ঢাবিতে গায়েবানা জানাজায় কফিন ছুঁয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার শপথ
রণক্ষেত্র জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, আহত শতাধিক
বৃহস্পতিবার ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক
সাংবাদিকদের মাঝে সাউন্ড গ্রেনেড মারলো পুলিশ, অন্তত তিন সংবাদকর্মী আহত
সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী
বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে উত্তাল শিক্ষার্থীরা, উত্তরবঙ্গের ২২ জেলার প্রবেশপথ অবরোধ
কোটা সংস্কার আন্দোলন হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত চেতনা: আসিফ নজরুল
শিক্ষার্থীদের নেতৃত্ব এখন বিএনপি-জামায়াতের হাতে: ওবায়দুল কাদের
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশ, র‍্যাব ও বিজিবি মোতায়েন, শাহবাগে ছাত্রলীগ-যুবলীগ