শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
Dhaka Prokash

গোপন অপরাধে অন্তর কলুষিত হয়

প্রাণ দেহ থেকে বের করে না ঠিক, কিন্তু আত্মাকে গোপনে মেরে ফেলে। কর্মে অবসাদ নিয়ে আসে। সব কিছুতে শূন্যতা ও একাকিত্ব অনুভব হয়। নেক আমলের নূর চলে যায়। অন্ধকার স্থান করে নেয় অন্তরে। কোনো কিছুতেই ভালো লাগে না। না ইবাদতের স্বাদ, না কর্মে তৎপরতা। এমন কিছু কাজ আছে, যা বান্দাকে আল্লাহর থেকে অনেক দূরে নিয়ে যায়। ঈমানে দুর্বলতা চলে আসে। এমনকি জাহান্নামে যাওয়ারও কারণ হতে পারে। 

গোপন অপরাধ


গোপন ইবাদত যেমন আল্লাহর কাছে বেশি পছন্দনীয়, তেমনি গোপন অপরাধ আল্লাহর অসন্তুষ্টির কারণ। গোপনে কারো হক নষ্ট করা, কাউকে কষ্ট দেওয়া, গোপনে হারাম কাজে লিপ্ত হওয়া—সবই গোপন অপরাধের অন্তর্ভুক্ত। বান্দা গোপনে গুনাহ করতে করতে অন্তর কলুষিত করে ফেলে। ফলে আল্লাহর রহমত থেকে দূরে সরে যায়। হাদিসে এসেছে, বান্দা যখন একটি গুনাহ করে তখন তার অন্তরে একটি কালো চিহ্ন পড়ে। অতঃপর সে যখন গুনাহর কাজ পরিহার করে ক্ষমা প্রার্থনা করে এবং তাওবা করে, তার অন্তর তখন পরিষ্কার ও দাগমুক্ত হয়ে যায়।


সে আবার পাপ করলে তার অন্তরে দাগ বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং তার পুরো অন্তর এভাবে কালো দাগে ঢেকে যায়। এটাই সেই মরিচা আল্লাহ তায়ালা যার বর্ণনা করেছেন, ‘কখনোই নয়, বরং তাদের কৃতকর্মই তাদের মনে জং (মরিচা) ধরিয়েছে।’ (সুরা : মুতাফফিফিন, আয়াত : ১৪) (তিরমিজি, হাদিস : ৩৩৩৪)


গোপন গুনাহর পরিণতি সম্পর্কে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, আমি আমার উম্মতের কতক দল সম্পর্কে অবশ্যই জানি, যারা কিয়ামতের দিন তিহামার শুভ্র পর্বতমালা সমতুল্য নেক আমল নিয়ে উপস্থিত হবে, কিন্তু মহামহিম আল্লাহ সেগুলোকে বিক্ষিপ্ত ধূলিকণায় পরিণত করবেন। সাওবান (রা.) বলেন, হে আল্লাহর রাসুল! তাদের পরিচয় পরিষ্কারভাবে আমাদের কাছে বর্ণনা করুন, যাতে অজ্ঞাতসারে আমরা তাদের অন্তর্ভুক্ত না হয়ে যাই। তিনি বলেন, তারা তোমাদের ভ্রাতৃগোষ্ঠী এবং তোমাদের সম্প্রদায়ভুক্ত। তারা রাতের বেলা তোমাদের মতোই ইবাদত করবে। কিন্তু তারা এমন লোক, যারা একান্ত গোপনে আল্লাহর হারামকৃত কর্মে লিপ্ত হবে। (ইবনে মাজাহ : ২/১৪১৮)


দৃষ্টি সংযত না রাখা


অন্তরের নূর চলে যাওয়া ও অন্তর কলুষিত হওয়ার একটি কারণ হলো দৃষ্টি অবনত না করা। বেগানা নারীর প্রতি দৃষ্টিপাত করলে শয়তান অন্তরে কুমন্ত্রণা সৃষ্টি করে। ধীরে ধীরে বড় গুনাহের দিকে যায়। এমনকি জিনার প্রতি প্রলুব্ধ করতে থাকে। এ জন্যই নবীজি (সা.) বলেছেন, ‘অনিয়ন্ত্রিত দৃষ্টি হচ্ছে শয়তানের বিষাক্ত তীর থেকে একটি তীর।’ (মুসনাদে আশ-শিহাব ১/১৯৫)
এই তীরে বিদ্ধ হওয়া থেকে বাঁচতে হলে নজর হেফাজত করতে হবে। অন্যথায় অগণিত নেক আমল করা সত্ত্বেও আল্লাহর সান্নিধ্য থেকে বঞ্চিত হতে হবে। রাসুল (সা.) উম্মতকে নির্দেশ দিয়ে বলেন, তোমরা দৃষ্টিকে নত করো, নিয়ন্ত্রণ করো এবং লজ্জাস্থান হেফাজত করো। (তাবরানি, হাদিস : ৮০১৮)

পর্নোগ্রাফির প্রতি আসক্তি


এটিও গোপন গুনাহের একটি ধরন। চোখের খেয়ানতই হলো এই আসক্তির মূল কারণ। আত্মাকে গলা টিপে হত্যা করে ফেলে এটি। লাখ লাখ তরুণ-তরুণী এর ভয়াল থাবায় আক্রান্ত। অনেকে চেষ্টা করেও বের হতে পারছে না। মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়েছে এটি গ্রাম-গঞ্জেও। এর প্রতিক্রিয়া এতটাই ভয়াবহ যে দাম্পত্যজীবন নষ্ট করার পেছনেও এর প্রভাব বিদ্যমান। বিয়ের পরও অনেকে এর আসক্তি থেকে বের হতে পারছে না। ভেবে দেখেছেন, এই পর্নোগ্রাফি কতটা ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে? অনেকে অজান্তেই নিজেকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘তোমরা নিজেদের ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিয়ো না।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ১৯৫)


সমাজে অধিক হারে ধর্ষণের জন্য এই পর্নোগ্রাফি দায়ী। অথচ এটি চোখের জিনার অন্তর্ভুক্ত। হাদিসে এসেছে, নিঃসন্দেহে দুচোখের ব্যভিচার হলো তাকানো, দুকানের ব্যভিচার হলো শোনা, জিহ্বার ব্যভিচার হলো কথোপকথন করা, হাতের ব্যভিচার হলো শক্ত করে ধরা, পায়ের ব্যভিচার হলো হেঁটে যাওয়া এবং হৃদয়ের ব্যভিচার হচ্ছে কামনা-বাসনা করা। আর লজ্জাস্থান তা সত্যায়িত করে বা মিথ্যা সাব্যস্ত করে। (মুসলিম, হাদিস : ৬৬৪৭)


ধ্বংসকারী অপরাধ থেকে মুক্তি লাভের উপায়


গোপন গুনাহ থেকে কিভাবে মুক্তি পেতে হয় তার কৌশল নিজেকেই আয়ত্ত করে নিতে হবে। কারো হিম্মতই পারে তাকে এখান থেকে বের করতে। একটু সৎসাহস ও ইচ্ছা থাকলেই আল্লাহ তাআলা উপায় বের করে দেবেন। এ ছাড়া কিছু বিষয় মেনে চলা অপরিহার্য। একাকী থাকা যাবে না। অলস সময় পার না করে যেকোনো ভালো কাজে নিয়োজিত থাকতে হবে। কথায় আছে, ‘অলস মস্তিষ্ক শয়তানের কারখানা।’ ইন্টারনেট ব্যবহারে সতর্ক থাকা চাই। পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে নিজেই প্রকাশ্যে প্রচারণা চালাতে হবে। লজ্জা তো ঈমানের অঙ্গ।
লজ্জাশীলতা বাড়াতে হবে। সৎ ও নেককার বন্ধুদের সঙ্গে চলতে হবে। হক্কানি আলেমদের সংস্রবে আসতে হবে। সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস, অসৎ সঙ্গে সর্বনাশ। মনে রাখতে হবে, এ ক্ষেত্রে বিয়ের কোনো বিকল্প নেই। আল্লাহ তাআলা বোঝার ও আমল করার তাওফিক দান করুন। যুবক ভাইদের বিয়েকে সহজ করে দিন, আমিন।

Header Ad

কঠিন হয়ে গেল দুবাই ভ্রমণ, ভিজিট ভিসায় প্রবেশে নতুন শর্ত

ছবি: সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাণিজ্যিক রাজধানী ও আকর্ষণীয় রাজ্য দুবাই। বিলাসবহুল জীবনযাপন, আকাশচুম্বী অট্টালিকা, হোটেলসহ নানা কারণে দুবাই ভ্রমণপিপাসুদের পছন্দের শীর্ষে।

কিন্তু আগে যেভাবে সহজ উপায়ে দুবাইয়ে ভিজিট ভিসায় প্রবেশ করা যেত এখন তা আর হচ্ছে না। ভ্রমণকারীদের প্লেনে ওঠার আগে বাধ্যতামূলক তিন হাজার দিরহাম (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৯৬ হাজার টাকা) নগদ, একটি বৈধ রিটার্ন টিকিট ও বাসস্থানের বৈধ (ইজারি) কাগজপত্রের প্রমাণ দেখাতে হবে। স্থানীয় গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছে পর্যটন সংস্থাগুলো।

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, আমিরাতে প্রবেশের নির্দেশিকা কঠোরভাবে অনুসরণ করার বিষয়টি নিশ্চিত করছে কর্তৃপক্ষ। কিছু যাত্রী যারা এসব শর্ত পূরণে ব্যর্থ হয়েছে তারা বলেছেন তাদের ভারতীয় বিমানবন্দরে আটকে দেওয়া হয়েছে এবং তাদের ফ্লাইটে উঠতে বাধা দেওয়া হয়েছে। আরও কিছু যাত্রী দুবাইয়ের বিমানবন্দরে আটকা পড়েছে বলে জানা গেছে।

তাহিরা ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও ফিরোজ মালিয়াক্কাল বলেন, দুবাই ভ্রমণকারীদের অবশ্যই কমপক্ষে ছয় মাসের বৈধতা থাকা পাসপোর্টসহ একটি বৈধ ভিসা থাকতে হবে। যাত্রীকে অবশ্যই রিটার্ন টিকিট বহন করতে হবে। এগুলো আগেও চেক করা হয়েছে। তবে এখন দুবাইতে থাকার জন্য পর্যাপ্ত অর্থ সঙ্গে নেওয়া হচ্ছে কি না তা নিশ্চিত করার জন্য চেক করা হচ্ছে। এ অর্থের পরিমাণ হবে নগদ বা ক্রেডিট কার্ডে তিন হাজার দিরহামের সমতুল্য যেকোনো মুদ্রা।

সেইসঙ্গে ভ্রমণকারীকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাসস্থানের বৈধ ঠিকানার প্রমাণ প্রদান করতে হবে; এটা হয় আত্মীয় বা বন্ধুর বাড়ি বা হোটেল বুকিং– যেকোনো কিছু হতে পারে, যোগ করেন ফিরোজ।

ট্র্যাভেল এজেন্টরা জানিয়েছেন, এ নিয়ম দীর্ঘকাল ধরেই আছে। তবে এখন ভ্রমণকারীদের সুবিধার্থেই কর্তৃপক্ষ নজরদারি কঠোর করেছে। রুহ ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজমের লিবিন ভার্গিস বলেছেন, দুবাই ভ্রমণকারীদের সুরক্ষার জন্য বিমানবন্দরেই চেক করা হচ্ছে। এর আগে ভিসা মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পরও থাকার অনেক ঘটনা ঘটেছে। কর্তৃপক্ষের এ পদক্ষেপটি আমিরাতের পর্যটন খাতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

তিনি বলেন, স্বচ্ছতা ও আমিরাতে ভ্রমণকারীদের যেকোনো অসংগতি এড়াতে কঠোরভাবে এসব চেক করা হচ্ছে।

কখন কোথায় আঘাত হানতে পারে ‘ঘূর্ণিঝড়’ রেমাল

ছবি: সংগৃহীত

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। আরও ঘনীভূত হয়ে রূপ নিতে পারে ঘূর্ণিঝড়ে। আর তেমনটা হলে এটি রোববার ভোর নাগাদ উপকূল অতিক্রম করতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। নিম্নচাপটির এখনকার গতিপথ বাংলাদেশের পটুয়াখালীর খেপুপাড়ার দিকে। এরই মধ্যে সমুদ্রবন্দরে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ রূপ নিয়েছে নিম্নচাপে। কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের সর্বোচ্চে গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার। আরও শক্তি সঞ্চয় করে উত্তর-পূর্ব দিকে এগুচ্ছে ঘণ্টায় ৫০ কিলোমিটার বেগে।

ভূ-উপগ্রহের চিত্র বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে, শনিবার নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড় রেমালে রূপ নিতে পারে। আর এর অগ্রভাগ মোংলা, সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী উপকূলে অতিক্রম শুরু করতে পারে রোববার ভোরে। কেন্দ্র বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক আজিজুর রহমান বলেন, ‘এখন যেই অবস্থানটা দেখাচ্ছে, তার কেন্দ্রটাই বাংলাদেশের ওপরে দেখাচ্ছে। ডান পাশ ও বাম পাশ দুটোই বাংলাদেশের ওপর দিয়ে যেতে পারে। আমাদের হাতে থাকা মডেল অনুযায়ী, এটি ভয়াবহ সাইক্লোনও রুপ নিতে পারে।’

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে সারা দেশে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। উপকূল অতিক্রমের সময় জোয়ার থাকলে হতে পারে জলোচ্ছ্বাস।

আজিজুর রহমান বলেন, ‘আগামীকাল (শনিবার) রাত থেকেই আমাদের উপকূলীয় জেলাগুলোতে বৃষ্টি শুরু হয়ে যেতে পারে। বিশেষ করে খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, চট্টগ্রাম পর্যন্ত। এটি যতই অগ্রগর হবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

নিম্নচাপের কেন্দ্রে সাগর উত্তাল রয়েছে। এরই মধ্যে সাগরে থাকা মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থাকতে বলা হয়েছে।

জাভিকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা

ছবি: সংগৃহীত

অনেক নাটকীয়তার পর শেষ পর্যন্ত জাভি হার্নান্দেজকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা। ব্যর্থতার দায়ভার নিয়ে মৌসুমের মাঝপথে কাতালান ক্লাব ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন জাভি, গেল জানুয়ারিতে বলেছিলেন মৌসুম শেষে বার্সেলোনা ছাড়বেন। তবে বার্সার অনুরোধে গত মাসে জাভি আরও এক মৌসুম থাকার সিদ্ধান্ত নেন। তার আগের চুক্তিতেও মেয়াদ ছিল ২০২৫ এর জুন পর্যন্ত।

কোচ জাভিকে বরখাস্ত করা নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে গুঞ্জন ছিল, যা অবশেষে সত্যি হলো। জাভি ক্লাবের অর্থনৈতিক বিষয় নিয়ে কথা বলেছিলেন। যা পছন্দ হয়নি বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট লাপোর্তার।

এরপর অবশ্য জাভি বলেছিলেন, দুই পক্ষের মধ্যে সব কিছু ঠিক আছে। তবে আজ শুক্রবার জাভিকে বরখাস্তের খবর এলো। দল-বদল বিষয়ক বিখ্যাত ক্রীড়া সাংবাদিক ফ্র্যাব্রিজিও রোমানোসহ বেশ কয়েকটি ইউরোপিয়ান সংবাদমাধ্যম জাভির বরখাস্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জাভির অধিনে বার্সলোনা ১৪১ ম্যাচে ৮৯টিতে জয় পেয়েছে। একটি করে লা লিগা ও স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতেছে।

বার্সেলোনা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আজ শুক্রবার জাভির সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন প্রেসিডেন্ট হুয়ান লাপোর্তা। তিনি জাভিকে জানিয়ে দিয়েছেন, ২০২৩-২৪ মৌসুম শেষে জাভি বার্সেলোনা দলের কোচ থাকবেন না। জাভিকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে রবিবার লা লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি হবে কাতালান বার্সার কোচ হিসেবে তার শেষ ম্যাচ।

বার্সেলোনা দায়িত্বে নতুন কোচ হিসেবে হ্যান্স ফ্লিকের নাম ঘোষণা এখন শুধু সময়ের ব্যাপার! এমনটি ভাবা হচ্ছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে এই বিষয়ে ঘোষণা দেবে বার্সা কর্তৃপক্ষ।

সর্বশেষ সংবাদ

কঠিন হয়ে গেল দুবাই ভ্রমণ, ভিজিট ভিসায় প্রবেশে নতুন শর্ত
কখন কোথায় আঘাত হানতে পারে ‘ঘূর্ণিঝড়’ রেমাল
জাভিকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা
গোবিন্দগঞ্জে ২ হাজার পিস বুফ্রেনরফিন ইনজেকশন উদ্ধার
সৌদি পৌঁছেছেন প্রায় ৩৯ হাজার হজযাত্রী
রাজনীতিতে আসার ইঙ্গিত দিলেন আনারকন্যা ডরিন
আজিজ ও বেনজীরের দুর্নীতির দায় সরকার এড়াতে পারে না: দুদু
ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে রাতে মাঠে নামছে হায়দরাবাদ-রাজস্থান
এমপি আনার হত্যা: ১২ দিনের রিমান্ডে কসাই জিহাদ
মারা গেছে মিমস জগতের জনপ্রিয় কুকুরটি
ফিক্সিং প্রমাণিত হলে ১০ বছর নিষিদ্ধ পাকুয়েতা!
নিম্নচাপে পরিণত সাগরের লঘুচাপ, বন্দরে সতর্কতা জারি
নওগাঁয় ভুয়া ডাক্তারকে অর্ধলক্ষ টাকা জরিমানা ও ৩ মাসের জেল
আনারের মরদেহ টুকরো টুকরো করে কাটার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ‘কসাই’ জিহাদ
এমপি আনারকে হত্যার বিষয়ে যা জানালেন মাস্টারমাইন্ড শাহীন
এমপি আনারের টুকরো টুকরো লাশের সন্ধান দিল গাড়িচালক
নিয়ামতপুর, পোরশা ও সাপাহারে ৪৬ প্রার্থীর ২৫ জনেই জামানত হারালেন
বিশ্বকাপে চাপ থাকবে, নার্ভ ধরে রাখতে হবে : সাকিব
সরকার কাউকে প্রটেকশন দেয় না : ওবায়দুল কাদের
বিয়ের আসরে নববধূকে বরের চুমু, বরের পরিবারকে মারধর