লিটনের শক্তি তিন সিনিয়র

০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৪০ পিএম | আপডেট: ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ০২:৫৪ পিএম


লিটনের শক্তি তিন সিনিয়র

পঞ্চপান্ডবের বাংলাদেশ এখন আর নেই। এইপঞ্চ পাণ্ডবের হাত ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেটের অনেক রূপকথা লেখা হয়েছে। পঞ্চপাণ্ডবের বিচ্যুতি শুরু হয় মাশরাফিকে দিয়ে। বাকি চারজনের মাঝে তামিম-মুশফিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বিদায় বলেছেন।

মাহমুদউল্লাহ বিদায় বলেছেন সাদা পোষাকের ক্রিকেটকে। তাই চারজনকে শুধুমাত্র ওয়ানডে ক্রিকেটেই পাওয়ার সুযোগ। কিন্তু ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের ইনজুরি ভারতের বিপক্ষে সেই সুযোগও পাচ্ছে না বাংলাদেশ। তার অনুপস্থিতিতে দলকে নেতৃত্ব দেবেন লিটন দাস।

ওয়ানডে ক্রিকেটের ১৫তম কাপ্তান হিসেবে লিটন দাস পাচ্ছেন সাকিব-মুশফিক-তামিমকে। এই তিন জনের ক্যারিয়ারেই ১৫ বছরেরও বেশি। নতুন একজন অধিনায়কের জন্য এ এক বড় প্রাপ্তি। মনোবল বৃদ্ধি। সাফল্যের জন্য প্রধান হাতিয়ার।

মুশফিক ২৩৬টি, সাকিব ২২১টি, ও মাহমুদউল্লাহ ২১২টি ম্যাচ খেলেছেন। তিন জনে মিলে সেঞ্চুরি করেছেন ২০টি। তিন জনেরে মোট রান ১৮,২৯৭। তাইতো লিটন এদের পেয়ে বেজায় খুশি।

তিনি বলেন, ‘আমি যখন দায়িত্ব পেলাম, আমার হাতে ১৫ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ৩ জন সিনিয়র খেলোয়াড় আছেন, এটা ভেবে অনেক ভালো লাগছে। অবশ্যই আমি চাইব তারা মাঠে আমাকে সহায়তা করবে। প্রথমবার এত বড় সিরিজে দায়িত্ব পেলাম। আমি আশাবাদী, বড় ভাইরা আমাকে সহায়তা করবে। তাদের কাছে যেকোনো সময় সহযোগিতা পাব।’

এই তিন জনের শক্তিতে বলীয়ান হয়েই হয়তো লিটন দাস ভারতের বিপক্ষে জেতার কথা ভাবছেন। যেখানে বাংলাদেশের শক্তির কথা বিবেচনা করে ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মাও সরাসরি জেতার কথা বলেননি।

লিটন বলেন, ‘লক্ষ্য একটাই। জেতার জন্যই খেলতে নামব। ওদের সঙ্গে লড়াই করা পুরোপুরি সম্ভব। আমাদের তিন বিভাগই ভালো আছে।’ শুধু প্রথম ওয়ানডে জেতার কথাই তিনি বলেননি। সিরিজ জেতার স্বপ্নও হৃদয়ে এঁকে ফেলেছেন। তিনি বলেন, ‘ট্রফি থাকলে খুশি হব। এর চেয়ে বেশি কিছু প্রয়োজন নেই।’

এমপি/এমএমএ/


বিভাগ : খেলা